advertisement
আপনি পড়ছেন

চীনে নিযুক্ত মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত উ মিয় থানট পে আকস্মিকভাবে মারা গেছেন। মিয়ানমার-সীমান্তবর্তী চীনা শহর কুনমিংয়ে রোববার তার মৃত্যু হয় বলে গতকাল রাতে মিয়ানমারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের শোকবার্তায় জানা গেছে। এ নিয়ে এক বছরেরও কম সময়ে চীনে চারজন বিদেশি রাষ্ট্রদূতের মৃত্যু হলো।

myanmar embassy china বেইজিংয়ে মিয়ানমারের দূতাবাস

নেপিদোতে বর্মী পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রকাশিত শোকবার্তায় বলা হয়েছে, চীনের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় কুনমিং শহর সফরকালে রাষ্ট্রদূত উ মিয় থানট পে মৃত্যুবরণ করেছেন। এতে রাষ্ট্রদূতের মৃত্যুর কারণ উল্লেখ করা হয়নি।

বেইজিংয়ে একাধিক কূটনৈতিক সূত্র এবং মিয়ানমারে চীনা ভাষার একটি সংবাদমাধ্যমে রাষ্ট্রদূতের মৃত্যুর সম্ভাব্য কারণ হিসেবে হার্ট অ্যাটাকের কথা বলা হয়েছে। এ বিষয়ে মন্তব্যের জন্য বেইজিংয়ে মিয়ানমার দূতাবাসে যোগাযোগ করে তাৎক্ষণিক কোনো সাড়া মেলেনি।

china flagচীনের পতাকা

রাষ্ট্রদূত উ মিয় থানট পেকে সবশেষ প্রকাশ্যে দেখা গেছে শনিবার বিকেলে। সেদিন তিনি চীনের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় উনান প্রদেশে স্থানীয় এক কর্মকর্তার সঙ্গে বৈঠক করেন। মিয়ানমার সীমান্তের পার্শ্ববর্তী চীনা প্রদেশ উনান।

উ মিয় থানট পে ২০১৯ সালে চীনে মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত নিযুক্ত হন। ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারিতে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী রাষ্ট্রক্ষমতা দখল করলে তিনি সামরিক সরকারের সঙ্গে আপস করেন এবং রাষ্ট্রদূত পদে বহাল থাকেন।

গত এক বছরেরও কম সময়ে চীনে মারা যাওয়া বিদেশি রাষ্ট্রদূতের মধ্যে উ মিয় থানট চতুর্থ। গত সেপ্টেম্বরে বেইজিংয়ে নিযুক্ত জার্মান রাষ্ট্রদূত ইয়ান হেকার (৫৪) আকস্মিকভাবে মারা যান। রাষ্ট্রদূত হিসেবে যোগদানের দুই সপ্তাহেরও কম সময়ের মধ্যে তার মৃত্যু হয়।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে মারা যান বেইজিংয়ে নিযুক্ত ইউক্রেনের রাষ্ট্রদূত সেরহি কামিশেভ (৬৫)। বেইজিং শীতকালীন অলিম্পিক ভেন্যুতে থাকাবস্থায় অথবা সেখান থেকে ফেরার অল্প সময়ের মধ্যে তিনি মারা যান। এরপর এপ্রিল মাসে চীনের পূর্বাঞ্চলীয় আনহুই প্রদেশে কোয়ারেন্টিনে থাকাবস্থায় মারা যান ফিলিপাইনের রাষ্ট্রদূত হোসে সান্তিয়াগো চিতো রোমানা (৭৪)।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর