advertisement
আপনি পড়ছেন

ব্যবসায়িক কর্মকাণ্ডে অসততার অভিযোগ তদন্তে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে সমন পাঠিয়েছে নিউইয়র্কের অ্যাটর্নি জেনারেল কার্যালয়। ট্রাম্প সে অনুযায়ী অ্যাটর্নি জেনারেলের কার্যালয়ে হাজিরা ও জবানবন্দি দিতে যাচ্ছেন। তবে তিনি কোনো জেরার জবাব দেবেন না বলে ধারণা করা হচ্ছে।

mar a lago tlsd সোমবার ফ্লোরিডায় ট্রাম্পের মার-আ-লাগো এস্টেটে তল্লাশি চালায় এফবিআই

ডোনাল্ড ট্রাম্পের কোম্পানি ট্রাম্প অর্গানাইজেশন ব্যাংক ও অন্যান্য প্রতিষ্ঠান থেকে ঋণ গ্রহণের সুবিধার্থে নিজেদের মালিকানাধীন হোটেল, রিসোর্ট, গলফ ক্লাব ও অন্যান্য রিয়েল এস্টেটের দাম বাড়িয়ে দেখিয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে। আবার কর ফাঁকি দেওয়ার লক্ষ্যে একই সম্পদের দাম কমিয়েও দেখানো হয়েছে।

ট্রাম্প অর্গানাইজেশনের বিরুদ্ধে এমন আরও নানা অনিয়ম ও অসততার অভিযোগ তদন্ত করছেন নিউইয়র্ক অ্যাটর্নি জেনারেল লেইটেশিয়া জেমস। তদন্তের অংশ হিসেবে ডোনাল্ড ট্রাম্প ও তার দুই প্রাপ্তবয়ষ্ক সন্তান ডোনাল্ড ট্রাম্প জুনিয়র ও ইভাঙ্কাকে জবানবন্দি দিতে বলা হয়। তদন্ত কর্মকর্তাদের কাছে হাজিরা ও জবানবন্দি এড়াতে বেশ কয়েক মাস ধরে চেষ্টা চালান ট্রাম্প ও তার সন্তানরা।

মঙ্গলবার রাতে ট্রাম্প তার সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাপ ট্রুথ সোশ্যালে দেওয়া এক পোস্টে তদন্তে হাজিরা দিতে সম্মতির কথা জানান। নিউইয়র্ক স্থানীয় সময় বুধবার তিনি অ্যাটর্নি জেনারেল কার্যালয়ে হাজির হবেন বলে উল্লেখ করেন। ট্রাম্প অর্গানাইজেশনের একটি সূত্রও রয়টার্সকে সাবেক প্রেসিডেন্টের হাজিরা দিতে যাবার পরিকল্পনার কথা নিশ্চিত করেছে।

সূত্র জানায়, ডোনাল্ড ট্রাম্প জুনিয়র ও ইভাঙ্কা ট্রাম্প এরইমধ্যে তদন্ত কর্মকর্তাদের সামনে জবানবন্দি দিয়েছেন। ট্রাম্প নিজেও জবানবন্দি দেবেন। রুদ্ধদ্বার কক্ষে এ জবানবন্দি গ্রহণ করা হবে।

নিউইয়র্ক অ্যাটর্নি জেনারেল কার্যালয়ের মুখপাত্র এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন। ডোনাল্ড ট্রাম্পের একজন আইনজীবীর মন্তব্য চেয়েও কোনো সাড়া মেলেনি।

এর আগে অ্যাটর্নি জেনারেল লেইটেশিয়া জেমস বলেছেন, ট্রাম্প অর্গানাইজেশন সুবিধাজনক শর্তে ঋণ পাবার জন্য রিয়েল এস্টেটের মূল্য বহুগুণ বাড়িয়ে দেখিয়েছে এবং পরবর্তীতে কর অব্যাহতি পেতে একই সম্পদের মূল্য কম দেখিয়েছে, এমন বহু প্রমাণ তার হাতে এসেছে।

ডোনাল্ড ট্রাম্প এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন এবং লেইটেশিয়া জেমসকে ‘বর্ণবাদী’ বলে অভিহিত করেছেন। নিউইয়র্কের এ তদন্ত রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলেও তিনি অভিযোগ তুলেছেন।

মঙ্গলবার রাতে ট্রুথ সোশ্যালে দেওয়া পোস্টে ট্রাম্প লেখেছেন- ‘আজ রাতে নিউইয়র্ক যাব। কালকে বর্ণবাদী নিউইয়র্ক স্টেট অ্যাটর্নি জেনারেলের সঙ্গে দেখা করব মার্কিন ইতিহাসের সবচেয়ে বড় প্রতিহিংসামূলক তদন্ত অব্যাহত রাখার জন্য। আমার মহান কোম্পানি ও আমাকে সবদিক থেকে আক্রমণ করা হচ্ছে। মগের মুল্লুক!’

হাজিরায় ট্রাম্প কতদূর কি বলবেন তা নিশ্চিত নয়। একটি সূত্র জানিয়েছে, বেশি কথা বললে নিজেই ফেঁসে যাবেন এমন আশঙ্কায় ট্রাম্প হয়তো তদন্তকারীদের জেরার সম্মুখীন হতে অস্বীকৃতি জানাবেন। তবে তার জবানবন্দির ওপর তদন্তের ভবিষ্যৎ নির্ভর করবে।

এদিকে পৃথক অভিযোগে সোমবার ফ্লোরিডায় ডোনাল্ড ট্রাম্পের মালিকানাধীন মার-আ-লাগো এস্টেটে তল্লাশি চালিয়েছে মার্কিন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই। গত বছর জানুয়ারি মাসে অফিস ছাড়ার সময় ট্রাম্প হোয়াইট হাউস থেকে বেআইনিভাবে গুরুত্বপূর্ণ কিছু সরকারি নথি সরিয়ে নিয়েছেন, এ মর্মে একটি অভিযোগ তদন্ত করছে সংস্থাটি।

ট্রাম্পের ছেলে ডোনাল্ড ট্রাম্প জুনিয়র অভিযোগ করেছেন, তল্লাশি চলাকালে এফবিআই সদস্যরা ট্রাম্পের এস্টেটের কর্মীদের কোনো পরোয়ানা দেখাতে অস্বীকৃতি জানান। ট্রাম্পের এক আইনজীবী তল্লাশি চলাকালে উপস্থিত থাকতে চাইলেও এফবিআই সদস্যরা তাকে সেখান থেকে বের করে দেন।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর