advertisement
আপনি পড়ছেন

৭১ জন বিশিষ্ট মার্কিন ও আন্তর্জাতিক অর্থনীতিবিদ যুক্তরাষ্ট্রকে আফগানিস্তানের ৭ বিলিয়ন ডলারের রিজার্ভ ছাড় করার আহ্বান জানিয়েছেন। গত এক বছর আগে তালেবান দক্ষিণ এশিয়ার দেশটির নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর ওয়াশিংটন ওই অর্থ স্থগিত করে। তালেবান সরকারের এক বছর পূর্ণ হচ্ছে এই মাসে। খবর টিআরটি ওয়ার্ল্ড।

seventy percent of afghan households are unable to meet their basic needsচিঠিতে বলা হয়, আফগানিস্তানের জটিল অর্থনৈতিক ও মানবিক বিপর্যয়ে আমরা উদ্বিগ্ন

খবরে বলা হচ্ছে, অর্থনীতিবিদ এবং উন্নয়ন বিশেষজ্ঞরা গতকাল বুধবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বিডেনের কাছে একটি চিঠি লিখেছেন। তাদের মধ্যে অর্থনীতিতে নোবেল বিজয়ী জোসেফ স্টিগলিটজ এবং ইয়ানিস ভারোফাকিসও রয়েছেন।

চিঠিতে বলা হয়, আফগানিস্তানের জটিল অর্থনৈতিক ও মানবিক বিপর্যয়ে আমরা উদ্বিগ্ন। দেশটির অর্থ আটকে দেওয়ার ব্যাপারে মার্কিন নীতির সমালোচনা করেন তারা। চিঠিটি মার্কিন ট্রেজারি সেক্রেটারি (অর্থমন্ত্রী) জ্যানেট ইয়েলেনের কাছে দেওয়া হয়।

অর্থনীতিবিদরা বলেন, বৈদেশিক রিজার্ভ ছাড়া আফগানিস্তানের কেন্দ্রীয় ব্যাংক স্বাভাবিক ও প্রয়োজনীয় কার্য সম্পাদন করতে পারছে না। একটি কার্যকরী কেন্দ্রীয় ব্যাংক ছাড়া আফগানিস্তানের অর্থনীতি ভেঙে পড়েছে।

এই সম্পদ আফগান জনগণের

চিঠিতে অর্থনীতিবিদরা যুক্তি দেখান, পুরো ৭ বিলিয়ন ডলার আফগান জনগণের। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এই রিজার্ভ আটকে রাখার অধিকার রাখে না। ঘানি সরকার আমেরিকান ব্যাংকে এ অর্থ গচ্ছিত রেখেছিল। ওয়াশিংটন-সমর্থিত ওই সরকার ২০২১ সালের আগস্টে তালেবানের হাতে পতনের শিকার হয়।

অর্থনীতিবিদরা বলেন, এই মুহূর্তে আফগান পরিবারগুলো তাদের ৭০ শতাংশ মৌলিক চাহিদা মেটাতে অক্ষম। প্রায় ২ কোটি ২৮ লাখ মানুষ তীব্র খাদ্য নিরাপত্তাহীনতার সম্মুখীন। ৩০ লাখ শিশু অপুষ্টির ঝুঁকিতে রয়েছে।

তাছাড়া ব্রিটেন, জার্মানি ও আমিরাতের স্থগিত করা ২ বিলিয়ন ডলারও ফেরত দেওয়া উচিত। আন্তর্জাতিক কর্তৃপক্ষের তত্ত্বাবধানে একটি ট্রাস্ট স্থাপন করে সম্পদ ফেরতের মার্কিন প্রস্তাব খুব ভাল ফলাফল বয়ে আনবে না বলে মনে করেন অর্থনীতিবিদরা।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর