advertisement
আপনি পড়ছেন

দেশ থেকে অর্থ পাচারের প্রসঙ্গটি যখনই আলোচনায় উঠে আসে, তখন অবধারিতভাবেই সামনে চলে আসে সুইজারল্যান্ডের বিভিন্ন ব্যাংকে জমা রাখা বাংলাদেশিদের অর্থের বিষয়টি। বলা হয়ে থাকে, সুইস ব্যাংকগুলো তাদের কাছে রাখা অর্থের তথ্য প্রকাশ করে না। তবে ঢাকায় নিযুক্ত সুইস রাষ্ট্রদূত বলেছেন, সরকার এ ব্যাপারে কোনো তথ্য চায়নি।

bangladesh high court 1হাইকোর্ট

গতকাল বুধবার (১০ আগস্ট) সুইস রাষ্ট্রদূত নাথালি চুয়ার্ড বলেন, সুইস ব্যাংকে রাখা বাংলাদেশিদের অর্থের বিষয়ে বাংলাদেশ সরকার আমাদের কাছে নির্দিষ্ট কোনো তথ্য চায়নি। রাষ্ট্রদূতের এমন বক্তব্যের পর এ নিয়ে চলছে জোর আলোচনা। কেন সরকার এ ব্যাপারে তথ্য জানাতে চায় না, সেই প্রশ্ন তুলে হাইকোর্ট আগামী রোববারের মধ্যে এর জবাব দিতে বলেছে রাষ্ট্রপক্ষ ও দুদককে।

আজ বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) বিচারপতি খিজির হায়াত ও নজরুল ইসলাম তালুকদারের বেঞ্চ স্বপ্রণোদিত হয়ে এই আদেশ দেন। আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক এবং দুদকের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট খুরশিদ আলম খান।

সুইজারল্যান্ডের কেন্দ্রীয় ব্যাংক গত জুন মাসে বার্ষিক প্রতিবেদক-২০২২ প্রকাশ করে। প্রতিবেদনে উঠে আসে, শুধু ২০২১ সালে সুইজারল্যান্ডের বিভিন্ন ব্যাংকে বাংলাদেশিদের জমা রাখা অর্থের পরিমাণ প্রায় ৩ হাজার কোটি টাকার সমান। আর গত বছরের ডিসেম্বর পর্যন্ত সবমিলিয়ে বাংলাদেশিদের রাখা অর্থের পরিমাণ ৮ হাজার ৩৩৩ কোটি টাকা।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর