আপনি পড়ছেন

মামলায় মামলায় অতিষ্ঠ হয়ে অবশেষে বেবি ট্যালকম পাউডার বিক্রি বন্ধ করে দেওয়ার ঘোষণা দিল বিশ্বজুড়ে জনপ্রিয় মার্কিন হেলথকেয়ার জায়ান্ট জনসন অ্যান্ড জনসন। ২০২৩ সালের পর আর বেবি পাউডারটি উৎপাদন ও বিপনন করবে না তারা। খবর বিবিসি।

johnson powderজনসনের বেবি পাউডার

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক বহুজাতিক কোম্পানি জনসন অ্যান্ড জনসনের তৈরি সাবান, শ্যাম্পু, লোশন ও পাউডারসহ বিভিন্ন পণ্য বাংলাদেশসহ বিশ্বের সব দেশেই ব্যাপক জনপ্রিয়। সন্তানদের জন্য জনসনের পণ্য নিরাপদ মনে করেন অনেক মা-বাবা।

তবে বেবি পাউডার নিয়ে খোদ যুক্তরাষ্ট্রেই জনসন অ্যান্ড জনসনের বিরুদ্ধে চলছে হাজার হাজার মামলা। মামলাকারীদের অভিযোগ, জনসনের বেবি পাউডারকে শিশুর জন্য ভালো মনে করতেন তারা। তবে ওই পাউডারে অ্যাজবেস্টসের মত ক্ষতিকর উপাদান থাকায় তা ডিম্বাশয়ের ক্যান্সার তৈরি করছে।

এই পাউডার ব্যবহার করে ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার ঘটনায় ২০১৮ সালের জুলাইতে মামলার রায়ে ২২ জন নারীকে ৪৭০ কোটি ডলার ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশ দেয় যুক্তরাষ্ট্রের একটি আদালত। অভিযোগকারী ২২ নারীর মধ্যে পরবর্তীতে ক্যান্সারে ভুগেই মারা যান ছয় জন।

যদিও জনসনের দাবি, তাদের বেবি পাউডারটিতে কোনো ক্ষতিকর উপাদান নেই। স্বাধীন গবেষণায় পণ্যটি ‘পুরোপুরি নিরাপদ’ বলেই প্রমাণিত হয়েছে।

তবে ক্যান্সার সৃষ্টিকারী ক্ষতিকর উপাদান থাকার অভিযোগে মামলার কারণে বছর দুয়েক আগেই যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে বেবি পাউডার বিক্রি বন্ধ করে দেয় জনসন। এখন বিশ্বের সব দেশেই বিক্রি বন্ধের ঘোষণা দিল তারা।

এক বিবৃতিতে জনসন জানিয়েছে, তাদের যেসব কারখানায় ট্যালকম পাউডার উৎপাদন হত, সেখানে ভবিষ্যতে কর্নস্টার্চভিত্তিক বেবি পাউডার তৈরি করা হবে । এটাই কোম্পানির বাণিজ্যিক সিদ্ধান্ত। এরইমধ্যে বিভিন্ন দেশে কর্নস্টার্চভিত্তিক বেবি পাউডার বিক্রিও শুরু করেছে জনসন।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর