আপনি পড়ছেন

দক্ষিণ-পূর্ব ইউক্রেনের জাপোরিঝিয়া পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে চালানো হামলা নিয়ে বিশ্বজুড়ে উদ্বেগ ছড়িয়ে পড়েছে। এরই মাঝে রাশিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্ট দিমিত্রি মেদভেদেভ সতর্ক করে বলেছেন, ইউরোপীয় অঞ্চলগুলোতেও পারমাণবিক দুর্ঘটনার আশঙ্কা রয়েছে। খবর আনাদোলু।

dmitry medvedev 3দিমিত্রি মেদভেদেভ

জাপোরিঝিয়া পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের আশেপাশের অঞ্চলে হামলার জন্য কিয়েভ রাশিয়াকে দায়ী করে আসলেও মস্কো ইউক্রেনকে দোষারোপ করছে। এ অবস্থায় রাশিয়ার নিরাপত্তা পরিষদের উপপ্রধান মেদভেদেভ গত বৃহস্পতিবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টেলিগ্রামে বলেন, ক্ষেপণাস্ত্র ও রকেট শেল বিদ্যুৎ কেন্দ্রের চুল্লি ও আইসোটোপ স্টোরেজ সুবিধার তেজস্ক্রিয়তার কাছাকাছি চলে আসছে।

এ সময় তিনি আরো দাবি করেন, কিয়েভ ও তাদের পশ্চিমা পৃষ্ঠপোষকরা ১৯৮৬ সালের চেরনোবিল দুর্ঘটনার মতো একটি নতুন ট্র্যাজেডির ব্যবস্থা করতে প্রস্তুত বলে মনে হচ্ছে।

zaporizhzhia nuclear power plantজাপোরিঝিয়া পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র

মেদভেদেভ বলেন, পশ্চিমারা অভিযোগ করে এই হামলার পেছনে রাশিয়া দায়ী। এটি সুস্পষ্ট ও ১০০% মিথ্যা কথা। এমনকি জাতিসংঘও এটি বিশ্বাস করে না। এটা ভুলে যাওয়া উচিত নয় যে, ইউরোপীয় ইউনিয়নেরও পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র রয়েছে। সেখানেও দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

গত বৃহস্পতিবার, জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস জাপোরিঝিয়া পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে অবিলম্বে সমস্ত সামরিক কার্যক্রম বন্ধ করার জন্য সব পক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

গুতেরেস পারমাণবিক প্ল্যান্ট এবং এর আশেপাশে উদ্ভূত পরিস্থিতি সম্পর্কে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে সেখানে অবস্থানরত সমস্ত সামরিক বাহিনী এবং সরঞ্জাম প্রত্যাহারের অনুরোধ জানান।

আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি সংস্থার প্রধান রাফায়েল গ্রসি পারমাণবিক কেন্দ্রটি পরিদর্শন করার সুযোগ করে দিতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদকে তিনি বলেন, প্রাথমিক মূল্যায়নের ভিত্তিতে এ স্থাপনায় নিরাপত্তার তাৎক্ষণিক কোনো হুমকি নেই, তবে যেকোনো মুহূর্তে পরিস্থিতি পাল্টে যেতে পারে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ ও আন্তর্জাতিক নিরাপত্তা বিষয়ক আন্ডার সেক্রেটারি বনি জেনকিন্স বলেছেন, জাপোরিঝিয়া প্ল্যান্টের চারপাশে একটি নিরস্ত্রীকরণ অঞ্চল তৈরির জন্য ইউক্রেন যে প্রস্তাব দিয়েছে, সেটিকে ওয়াশিংটন সমর্থন করে।

এ বিদ্যুৎকেন্দ্রটি ইউরোপের সবচেয়ে বড় পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র। গত ২৪ ফেব্রুয়ারি রাশিয়া ইউক্রেনে হামলা চালাতে শুরু করে। এর দুই সপ্তাহের মধ্যে বিদ্যুৎকেন্দ্রটির নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেয় রাশিয়া।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর