advertisement
আপনি পড়ছেন

আগামী সেপ্টেম্বরে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের (ইউএনজিএ) বৈঠকে ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি যোগদান করুক, তা চাচ্ছে না মার্কিন ক্যাপিটল হিলের লবি গোষ্ঠীগুলো। রাইসির সফর বাইডেনের মাথাব্যাথার কারণ হয়ে উঠেছে। ইরানের সমালোচকরা রাইসিকে যুক্তরাষ্ট্রে নিষিদ্ধ করতে জোর প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। তাদের দাবি, ১৯৮৮ সালে ইরানে বিরোধীদলের নেতাদের বিরুদ্ধে গণহারে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর কমিশনে রাইসি যুক্ত ছিলেন। খবর টিআরটি ওয়ার্ল্ড।

ibrahim raisiইব্রাহিম রাইসি

ক্যাপিটল হিলের লবি গোষ্ঠীগুলো মূলত রিপাবলিকান পার্টির মতামতকে অগ্রাধিকার দিচ্ছে। তারা প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রশাসনকে আহ্বান জানিয়েছে, ইরানের প্রেসিডেন্ট ও তার প্রতিনিধিদলকে নিউইয়র্কে জাতিসংঘের সদর দফতরে বৈঠকে অংশ নিতে দেওয়া যাবে না। তারা যাতে যুক্তরাষ্ট্রে ঢুকতে না পারে, সেজন্য ভিসা বাতিল করতে হবে।

লবি গোষ্ঠীর দাবি, ১৯৮৮ সালে রাজনৈতিক কারণে প্রায় পাঁচ হাজার লোককে মৃত্যুদণ্ডের শাস্তি দেয় ইরান। মানবাধিকার কর্মী এবং সমালোচকরা বলেন, আপিল করার অধিকার বা ন্যায্য বিচার ছাড়াই তাদের হত্যা করা হয়েছিল। ওই বিচার কমিশনের ডেপুটি প্রসিকিউটর ছিলেন ইব্রাহিম রাইসি। একই বিচার বিভাগ পরবর্তী বছরগুলোতেও ইরানে বিরোধী মতের বিরুদ্ধে নিপীড়ন অব্যাহত রাখে।

flag iran usaইরান ও যুক্তরাষ্ট্রের পতাকা

তবে ইরান সরকার এই ধরনের অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে। ইরান জোর দিয়ে জানিয়েছে, ইসলামী বিপ্লবের বিরুদ্ধে যারা বিদ্রোহ করেছিল, শুধু তাদেরই মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ইরানের এই সিদ্ধান্তকে মানতে পারেনি।

২০১৯ সালে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসনের অধীনে রাইসিকে চাপে রাখা হয়। মার্কিন ট্রেজারি ডিপার্টমেন্টের ফরেন অ্যাসেট কন্ট্রোল অফিসের নিষেধাজ্ঞা তালিকায় রাইসির নাম রাখা হয়।

১৯৮৮ সালে ১৯ জুলাই থেকে ইরানের রাজনৈতিক বন্দিদের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর শুরু হয়। প্রায় পাঁচ মাস ধরে তা চলতে থাকে। নিহতদের অধিকাংশই ছিল ইরানের পিপলস মুজাহেদিনের সমর্থক। ফেদাইয়ান এবং ইরানের তুদেহ পার্টিসহ (কমিউনিস্ট পার্টি) অন্যান্য বামপন্থী দলের সমর্থকদেরও মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছিল।

অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের মতে, ওই সময় ইরানে হাজার হাজার রাজনৈতিক ভিন্নমতাবলম্বী নিখোঁজ হয়েছিল এবং সর্বোচ্চ নেতার জারি করা আদেশ অনুসারে বিচারবহির্ভুত মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছিল।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর