আপনি পড়ছেন

সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট ইয়েমেনে গত ২৪ ঘণ্টায় ১২৬ বার যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করেছে। ইয়েমেনের মারিব, তাইজ, আল জাওফ, সাদা, আল হুদাইদাহ, ধলেহ, হাজ্জাহ ইত্যাদি প্রদেশে বিমান হামলা চালিয়ে জাতিসংঘের মধ্যস্থতায় করা যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করেছে জোটটি। আল মাসিরাহর রিপোর্টের বরাত দিয়ে এ খবর দিয়েছে ইরানিয়ান লেবার নিউজ এজেন্সি।

airstrikes in yemenইয়েমেনে বিমান হামলা, ফাইল ছবি

খবরে বলা হয়, সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের সশস্ত্র অনুসন্ধান বিমান আল হুদায়দাহ প্রদেশে হানা দেয়। এখানকার আল হেইস এলাকার আবাসিক বাড়িঘর, সেনাঘাঁটি এবং পপুলার কমিটির অবস্থানগুলোকে টার্গেট করে হামলা চালায়। এসব হামলায় তারা ভারী কামান, রকেট ও মর্টার ব্যবহার করে।

যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘনের ঘটনা এমন সময় ঘটল, যখন বর্ধিত সময়ের জন্য যুদ্ধবিরতি চলছে। জাতিসংঘের বিশেষ দূত হ্যান্স গ্রুন্ডবার্গের মধ্যস্থতায় সর্বশেষ দুই মাস যুদ্ধবিরতি বাড়ানো হয়। দুপক্ষই এই যুদ্ধবিরতিতে একমত পোষণ করে। তবে সৌদির এই হামলায় অঞ্চলটি আবারও অস্থিতিশীলতার দিকে চলে যাবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

aden yemen stcইয়েমেনে ধ্বংসযজ্ঞ

সৌদি আগ্রাসী জোট বারবার ইয়েমেনে যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করে আসছে। তারা জাতিসংঘের পরামর্শ অনুসরণ করছে না। সংস্থাটিকে তোয়াক্কা না করেই তারা হামলা চালাচ্ছে। এর আগেও একবার যুদ্ধবিরতি বাড়ানো হয়েছিল। সর্বশেষ গত ২ আগস্ট যুদ্ধবিরতি আবারও দুই মাস বাড়ানো হয়।

সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন সৌদি সামরিক জোট ২০১৫ সালের ২৬ মার্চ ইয়েমেনের বিতাড়িত প্রেসিডেন্ট মনসুর হাদি সরকারের সমর্থনে হুথি বিদ্রোহীদের দমনে হামলা শুরু করে। হামলার পর থেকে ইয়েমেনের হুথি বিদ্রোহীরা পাল্টা হামলা চালিয়ে আসছিল। দুই পক্ষের এসব হামলায় বহু মানুষ নিহত হয়েছেন। অবশেষে যুদ্ধবিরতি কার্যকর সম্ভব হয়েছে।

এই যুদ্ধবিরতির মাধ্যমে মনে করা হয়েছিল ইয়েমেনে শান্তি ফিরে আসবে। কিন্তু যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করে বারবার হামলা চালাচ্ছে সৌদি সামরিক জোট। তারা মনে করে, হুথিদের অস্ত্র সরবরাহ করে ইয়েমেনে ইরান প্রক্সি যুদ্ধে লিপ্ত। তবে ইরান এই অভিযোগ বরাবর অস্বীকার করে আসছে।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর