advertisement
আপনি পড়ছেন

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে ফের বিক্ষোভে শামিল হয়েছেন নারীরা। আজ শনিবার (১৩ আগস্ট) বিক্ষোভে অংশ নেন অর্ধশত নারী। তবে কিছুক্ষণের মধ্যেই তালেবান যোদ্ধারা ওই বিক্ষোভ ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এ সময় নারীদের মারধর, লাঠিপেটা ও ফাঁকা গুলিবর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। খবর আল জাজিরা ও বিবিসি।

taliban disperses rare protest by afghan women in kabulকাবুলের রাজপথে নারীদের বিক্ষোভ

আফগানিস্তানে আগামী ১৫ আগস্ট তালেবানের ক্ষমতায় আসার প্রথম বর্ষপূর্তি। দিবসটিকে সামনে রেখে নারীদের রুটি-রুজির সুযোগ ও রাজনীতিতে অংশগ্রহণের অধিকার দেওয়ার দাবিতে কাবুলে বিক্ষোভে নামেন নারীরা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, কাবুলের শিক্ষা মন্ত্রণালয় ভবনের সামনে বিক্ষোভে অংশ নেন ৪০ জনের মতো আফগান নারী। এ সময় ‘রুটি, রুজি ও স্বাধীনতা’ ও  ‘ন্যায়বিচার চাই, অবহেলা নয়’ প্রভৃতি স্লোগান দেন বিক্ষোভকারী নারীরা। তাদের ব্যানারে লেখা ছিল ‘১৫ আগস্ট কালো দিন’।

তবে কিছুক্ষণের মধ্যে ফাঁকা গুলি ছুড়ে নারী বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয় তালেবান পুলিশ। এ সময় নারীরা দৌড়ে আশপাশের দোকানে আশ্রয় নিলে তাদেরও ধাওয়া করে তালেবান যোদ্ধারা। বন্দুকের বাঁট দিয়ে অনেককে আঘাত করা হয়।

এক নারী বিক্ষোভকারী বলেন, আজকের বিক্ষোভে ফাঁকা গুলি চালিয়েছে তালেবান। মারধর করলেও তা আগের মতো ভয়ানক নয়। তারপরও আমরা ভীত ছিলাম। আমরা চাই, তালেবান যেন মেয়েদের স্কুল অন্তত খুলে দেয়।

আফগানিস্তানে ২০২১ সালের ১৫ আগস্ট দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় আসে তালেবান। কট্টরপন্থী এ গোষ্ঠীটি ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত দেশটিতে ক্ষমতায় ছিল। সে সময় তারা কঠোর শরিয়াহ আইন চালু করেছিল দেশজুড়ে। এবারও ক্ষমতায় এসে তারা আগের আমলের মতো অনেক বিধিনিষেধ আরোপ করেছে দেশটিতে। বিশেষ করে মেয়েদের স্কুলে যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে তালেবান সরকার। তারা একা নারীদের বাইরে বের হতে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। সরকারি চাকরিতে ফিরতে দেওয়া হচ্ছে না নারীদের।

এমন পরিস্থিতিতেই রাজপথে নেমে আসলেন নারীরা। আফগানিস্তানে তালেবান শাসকদের বিরুদ্ধে গত কয়েক মাসের মধ্যে এটি নারীদের প্রথম কোনো বিক্ষোভ।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর