advertisement
আপনি পড়ছেন

জয়টা প্রত্যাশিতই ছিল। তবে থাইল্যান্ড সহজে জিততে দেয়নি বাংলাদেশ জাতীয় নারী ক্রিকেট দলকে। থাই মেয়েরা দারুণ লড়াই করেছে। ম্যাচের শেষ ওভার পর্যন্ত লড়েছে তারা। বাংলাদেশের বুকে রীতিমতো কাঁপন ধরিয়েছিল। আশার কথা শেষপর্যন্ত থাইল্যান্ডের বাধা টপকে যেতে পেরেছে টাইগ্রেসরা।

the women s team defeated thailand in the finalথাইল্যান্ডকে হারিয়ে ফাইনালে নারী দল

থাইল্যান্ডকে হারিয়ে আইসিসি নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বাছাই পর্বের ফাইনালে উঠেছে বাংলাদেশ নারী দল। আবুধাবিতে শুক্রবার সেমিফাইনালে থাইল্যান্ডকে ১১ রানে পরাজিত করেছে বাংলাদেশের মেয়েরা।

আগামী ২৫ সেপ্টেম্বর শেখ জায়েদ স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে বাছাই পর্বের ফাইনাল। ট্রফি জয়ের লড়াইয়ে আয়ারল্যান্ডের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ দল। বাংলাদেশ সময় রাত ৯টায় শুরু হবে ম্যাচটি। এই টুর্নামেন্টের গ্রুপ পর্বেও আইরিশদের হারিয়েছিল নিগার সুলতানা জ্যোতির দল।

ফাইনালে উন্নীত হওয়ার সঙ্গে ২০২৩ আইসিসি নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে বাংলাদেশ নারী দল। আগামী বছর ফেব্রুয়ারিতে দক্ষিণ আফ্রিকায় হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। বাছাই পর্ব থেকে সেরা দুই দল হিসেবে বিশ্বকাপে খেলা নিশ্চিত করল বাংলাদেশ ও আয়ারল্যান্ড।

আবুধাবিতে আগে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেটে ১১৩ রান তুলেছিল বাংলাদেশ দল। রুমানা আহমেদ অপরাজিত ২৮, মুর্শিদা খাতুন ২৬, নিগার ১৭, শামীমা ১১ ও রিতু মনি ১৭ রান করেন। থাইল্যান্ডের পক্ষে কামচোম্পো, মায়া ও কানোহ ১টি উইকেট নেন।

জবাবে ৬ উইকেটে ১০২ রানের বেশি তুলতে পারেনি থাইল্যান্ড। একপ্রান্ত আগলে নাত্তাকান চানথাম লড়াইটা চালিয়ে গেছেন। তবে দলের হার ঠেকাতে পারেননি। তিনি ৫১ বলে ৬৪ রান করেন। ইনিংস শেষের এক বল আগে সালমা খাতুনের বলে বোল্ড হন তিনি। পরের বলেও উইকেট নেন সালমা।

কনচারোয়েনকাই ১০, চাইউই ১২, টিপোচ অপরাজিত ১০ রান করেন। বাংলাদেশের সালমা ৩টি, সানজিদা আক্তার মেঘলা ২টি ও নাহিদা আক্তার ১টি উইকেট পান।