আপনি পড়ছেন

যান্ত্রিক গোলযোগের কারণে ভারতের দিল্লি বিমানবন্দরে নামার অনুমতি চেয়েছিল ইরানের একটি যাত্রীবাহী বিমান। কিন্তু সে অনুমতি তো দেয়াই হয়নি, বরং বিমানটি যেন কোনোভাবেই দিল্লিতে অবতরণ করতে না পারে সে জন্য বিমানবাহিনীর দুটি বিমান সেই বিমানটিকে তাড়া করে। ভারতের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, ইরানের ওই বিমানটি ঘিরে বোমাতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ায় তারা এ ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হয়েছে। খবর এনডিটিভি।

mahan airমাহান এয়ারের একটি বিমান, ফাইল ছবি

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো জানায়, তেহরান থেকে যাত্রা শুরু করা মাহান এয়ারের বিমানটির গন্তব্য ছিল চীনের গুয়াংঝাও। পথে যান্ত্রিক ত্রুটি জানিয়ে দিল্লি বিমানবন্দরে অবতরণের সুযোগ চায় বিমানটি। এরই মধ্যে সকাল সোয়া নয়টায় পুলিশের কাছে আসা একটি ফোনে দাবি করা হয়, তেহরান থেকে আসা ওই বিমানে বোমা রয়েছে।

এই সময়েই বিমানটি ভারতের আকাশসীমায় ঢুকে পড়ে। সঙ্গে সঙ্গে দিল্লি পুলিশের তরফে বোমাতঙ্কের বিষয়টি এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল বিভাগকে জানানো হয়। বিষয়টি জানানো হয় ভারতীয় বিমানবাহিনীকে। এরপর উত্তর ভারতের পাঞ্জাব ও জয়পুর থেকে দুটি যুদ্ধবিমান উড়ে যায় ইরানের বিমানটিকে তাড়া করতে। বিশেষ করে বিমানটি যেন কোনোভাবেই দিল্লিতে অবতরণ না করতে পারে, তা নিশ্চিত করে যুদ্ধবিমানগুলো।

indian air spaceআকাশে সুখোই বিমান, ফাইল ছবি

পরে দিল্লির এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল বিমানটিকে জয়পুর বা চণ্ডিগড়ে অবতরণ করার পরামর্শ দেয়। কিন্তু মাহান এয়ার সেখানে অবতরণ করতে রাজি হয়নি। অবশ্য জয়পুর বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষও ওই বিমানটিকে অবতরণের অনুমতি দেয়নি। ফলে ইরানের বিমানটি ওই অবস্থাতেই চীনের দিকে উড়ে যায়।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর