আপনি পড়ছেন

ক্যালিফোর্নিয়ার গবেষণাগারে তৈরি হয়েছে এমন এক ক্যামেরা যা ১৫ মাইল দূরের গলফ বলের ছবিও নিখুঁতভাবে তুলতে সক্ষম। সাত বছর ধরে গবেষণা করে তারা তৈরি করেছেন ৩২০০ মেগাপিক্সেলের এক ডিজিটাল ক্যামেরা।

camera৩,২০০ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা

৩২০০ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরাটি তৈরি করেছে মার্কিন এসএলএসি ন্যাশনাল অ্যাক্সেলেটর ল্যাবরেটরির বিজ্ঞানীরা। সম্প্রতি ক্যালিফোর্নিয়ার গবেষণাগারে তৈরি সেই ক্যামেরাটির ছবি ও তথ্য প্রকাশ করলেন বিজ্ঞানীরা। তাদের দাবি, এটিই পৃথিবীর সবচেয়ে বড় ডিজিটাল ক্যামেরা। ক্যামেরাটির নাম রাখা হয়েছে এলএসএসটি।

বিজ্ঞানীরা জানিয়েছে, ক্যামেরাটি চালু করা না হলেও যাবতীয় যন্ত্রপাতি লাগানো হয়ে গেছে। ২৮০০ কিলোগ্রাম ওজনের ক্যামেরাটিতে থাকবে ১৯৯টি সেন্সর।

তবে সাধারণ কোনো ছবি তুলতে ক্যামেরাটি ব্যবহৃত হবে না, রাতের আকাশের ত্রিমাত্রিক ছবি তুলতেই শুধু এটির ব্যবহার। চিলির কেরো পাচোঁ পাহাড়ের উপর রুবিন মানমন্দিরে বসবে ক্যামেরাটি। চলতি বছরের শেষে পরীক্ষামূলক ভাবে ছবি তোলা হবে ক্যামেরাটিতে। সব ঠিক থাকলে ২০২৩ সালের মে মাসে পুরোপুরি চালু হবে এটি। ক্যামরাটি ব্যবহার করে মহাকাশের উপর একটি তথ্যচিত্র বানানোর পরিকল্পনা রয়েছে রুবিন মানমন্দির কর্তৃপক্ষের।

সম্প্রতি জেমস ওয়েব স্পেস টেলিস্কোপের মহাকাশের বেশ কিছু ছবি হৈচৈ ফেলে দিয়েছিল। তবে বিজ্ঞানীরা আশা করছেন, এলএসএসটি জেমস ওয়েবের চেয়েও বিস্তৃত দৃশ্য গ্রহণ করতে পারবে। প্রতি ১৫ সেকেন্ডে চাঁদের আয়তনের সাত গুণ বড় ছবি তুলতে সক্ষম হবে এই ক্যামেরা।