আপনি পড়ছেন

মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন দেশটির বর্ষীয়ান নেতা আনোয়ার ইব্রাহিম। ৭৫ বছর বয়সী এই নেতা স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টায় কুয়ালালামপুরে রাজা সুলতান আবদুল্লাহ আহমাদ শাহর সামনে শপথ নেন। প্রধানমন্ত্রী পদের জন্য তাকে পাড়ি দিতে হয়েছে দীর্ঘ পথ, লড়াই করতে হয়েছে গত ২৫ বছর। খবর আল জাজিরা।

anowar malausiaশপথ গ্রহণের পর প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নথিতে স্বাক্ষর করেন আনোয়ার ইব্রাহিম

মালয়েশিয়ার ১৫তম জাতীয় নির্বাচনে জয় পায় আনোয়ার ইব্রাহিমের নেতৃত্বাধীন পাকাতান হারাপান জোট। তবে এককভাবে সরকার গঠনের জন্য প্রয়োজনীয় ১১২টি আসন জিততে পারেনি জোটটি।

ভোটে সাবেক প্রধানমন্ত্রী মুহিদ্দিন ইয়াসিনের জোট পেরিকাতান ন্যাসিওনাল (পিএন) দ্বিতীয় সর্বোচ্চ আসন পায়।

দুই পক্ষই দুইদিন থেকে সরকার গঠনের আলোচনা শুরু করে। কয়েকটি ছোট জোটও তাদের সঙ্গে যোগ দেয়। তাতেও কারো সংখ্যাগরিষ্ঠতা হচ্ছিল না। এতে সরকার গঠন নিয়ে কিছুটা সঙ্কট তৈরি হলে হস্তক্ষেপ করেন রাজা সুলতান আবদুল্লাহ।

রাজা সুলতান আবদুল্লাহ দুই জোটের নেতা আনোয়ার ও মুহিদ্দিনের সঙ্গে বৈঠক করেন। তিনি নবনির্বাচিত এমপিদেরও সাক্ষাৎকার নিয়ে সমর্থন চান।

আজ বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) রাজপ্রাসাদে এসব বৈঠক ও সাক্ষাৎকার শেষে রাজা প্রধানমন্ত্রী হিসেবে আনোয়ারের নাম ঘোষণা করেন। ২২২ জন এমপির সমর্থন পুরো হওয়ায় সুলতান আব্দুল্লাহ দেশের দশম প্রধানমন্ত্রী হিসেবে আনোয়ারকেই ঘোষণা দেন। 

রাজা সুলতান আবদুল্লাহ এক বিবৃতিতে বলেন, প্রকৃতপক্ষে জয়ী বা পরাজিত হননি কেউই। সবাইকে একসঙ্গে হয়ে দেশের কল্যাণে কাজ করতে হবে।

পরে সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন আনোয়ার ইব্রাহিম।

আনোয়ার ইব্রাহিমের রাজনৈতিক ক্যারিয়ার শুরু ছাত্র আন্দোলনকারী হিসেবে। তিনি ১৯৭১ সালে মুসলিম ইয়্যুথ মুভমেন্ট অব মালয়েশিয়া প্রতিষ্ঠা করেন তিনি। গ্রামের দারিদ্র্য ও আর্থসামাজিক বিভিন্ন ইস্যুতে আন্দোলন করেন তিনি।  

তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদের অনুরোধে ইউনাইটেড মালয়স ন্যাশনাল অরগানাইজেশনে (ইউএনএমও) যোগ দেন। এরপর দ্রুতই উত্থান ঘটে আনোয়ারের। পরে তিনি অর্থমন্ত্রী ও উপ-প্রধানমন্ত্রী হন। একপর্যায়ে মাহাথির তাকে নিজের উত্তরসূরি হিসেবে বেছে নেন। 

১৯৯৮ সালে আনোয়ারের ওপর দুর্নীতি ও সমকামিতার অভিযোগে তিনি বরখাস্ত হন। তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। ২০০৪ সালে তিনি মুক্ত হলেও সমকামিতার অভিযোগে পুরোনো আন্দোলন পুনরায় চাঙ্গা হয়। ২০১৮ সালে ক্ষমা প্রাপ্তি এবং কারামুক্ত হওয়ার আগে তাকে ১০ বছরের মতো জেল খাটতে হয়েছে।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর