আপনি পড়ছেন

আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, ২০২৫ সালের মধ্যে তথ্যপ্রযুক্তি খাতে অন্তত ৫টি ইউনিকর্ন প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশে গড়ে উঠবে। আমাদের প্রধানমন্ত্রীর দূরদর্শী নেতৃত্বে বাংলাদেশ অনেক আগেই ডিজিটাল রূপান্তরের মাধ্যমে একটি সমৃদ্ধ রাষ্ট্রে পরিণত হওয়ার স্বপ্ন দেখেছে। এ বিষয়টি এখন বাস্তবে পরিণত হয়েছে। এখন আমরা বিশ্বের উদীয়মান অর্থনীতির দেশগুলোর মধ্যে অন্যতম।

junaid ahmed palakআইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক

২৫ নভেম্বর, শুক্রবার রাজধানীর একটি হোটেলে বাংলাদেশের অর্থনীতির গতিপ্রকৃতি বিশ্লেষণ করে প্রকাশিত ‘দ্য ট্রিলিয়ন-ডলার প্রাইজ – লোকাল চ্যাম্পিয়নস লিডিং দ্য ওয়ে’ সমীক্ষা প্রতিবেদন বইয়ের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন প্রতিমন্ত্রী। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বোস্টন কনসাল্টিং গ্রুপের গ্লোবাল চেয়ার ইমেরিটাস হ্যান্স-পল বার্কনার।

পলক বলেন, সরকার পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশীপে বিশ্বাসী। সেই সূত্র ধরেই, কোভিডে উদ্যোক্তা, উদ্ভাবক ও স্টার্টআপদের প্রচেষ্টায় দেশের অর্থনীতির চাকাকে সচল রাখতে সক্ষম হয়েছে।

ড. হ্যান্স-পল বার্কনার বলেন, বাংলাদেশ এখন অন্যান্য উন্নয়নশীল অর্থনীতির জন্য রোল মডেল। এ দেশটি ইতোমধ্যে অনেক কিছু অর্জন করেছে। দেশের বেসরকারি খাতের অপরিসীম অবদানের কারণে এ অর্জন সম্ভব হয়েছে।

‘দ্যা ট্রিলিয়ন-ডলার প্রাইজ-লোকাল চ্যাম্পিয়ন্স লিডিং দ্যা ওয়ে সমীক্ষা’ প্রতিবেদনে প্রকাশিত হয়- ভিয়েতনাম, ভারত, ইন্দোনেশিয়া ও থাইল্যান্ডের মতো দেশকে পেছনে ফেলে বাংলাদেশ দ্রুত বর্ধনশীল অর্থনীতির দেশ হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে এবং ট্রিলিয়ন ডলারের অর্থনীতিতে পরিণত হওয়ার পথে এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশের এ প্রবৃদ্ধিকে ত্বরাণ্বিত করতে অপ্টিমিস্টিক আউটলুক, গিগ ইকোনমি, ভোগ্য পণ্যের চাহিদা বৃদ্ধি, তরুণ ও ক্রমবর্ধমান কর্মশক্তি, অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা, ডিজিটাল মাধ্যমের বহুল ব্যবহার, সরকারি উদ্যোগ এবং একটি বৃহৎ, সু-সংগঠিত বেসরকারি খাতসহ বিভিন্ন বিষয় সহায়ক ভূমিকা পালন করেছে।