আপনি পড়ছেন

বিশ্বের বৃহত্তম সক্রিয় আগ্নেয়গিরি মাওনা লোয়ায় অগ্ন্যুৎপাতের ঘটনা ঘটেছে। যুক্তরাষ্ট্রের দ্বীপরাজ্য হাওয়াইয়ে এর অবস্থান। প্রায় চার দশক পর এই আগ্নেয়গিরি থেকে অগ্ন্যুৎপাতের ঘটনা ঘটল। ইউএস জিওলজিক্যাল সার্ভে (ইউএসজিএস) জানিয়েছে, রোববার গভীর রাতে অগ্নুৎপাত শুরু হয়। কর্মকর্তারা বাসিন্দাদের সতর্ক করার পাশাপাশি ভূমিকম্পের সতর্কতা দিয়েছেন। স্কাই নিউজ।

worlds largest active volcano erupts for the first time in nearly four decadesবিশ্বের বৃহত্তম আগ্নেয়গিরিতে অগ্ন্যুৎপাত

হাওয়াইয়ান ভলকানো অবজারভেটরি (এইচভিও) জানিয়েছে, অগ্ন্যুৎপাতের লাভা প্রবাহ দৃশ্যমান হয়েছে। বাতাস আগ্নেয়গিরির গ্যাস এবং সূক্ষ্ম ছাই জনপদের দিকে বয়ে আনতে পারে। এইচভিও মূলত ইউএসজিএস-এর অংশ হিসেবে কাজ করে। প্রাকৃতিক দুর্যোগ পর্যবেক্ষণ করাই তাদের কাজ।

এইচভিও জানিয়েছে, লাভা প্রবাহ বর্তমানে শিখর এলাকায় সীমাবদ্ধ রয়েছে। কাছাকাছি কোনো সম্প্রদায় কিংবা জনপদ এখনও হুমকির মুখে পড়েনি। তবে আগাম সতর্কতা জারি করা হয়েছে, যাতে যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবেলা সহজ হয়।

worlds largest active volcano erupts for the first time in nearly four decades 1বিশ্বের বৃহত্তম আগ্নেয়গিরিতে অগ্ন্যুৎপাত, সতর্কতা জারি

মাউনা লোয়ায় শুরু থেকে এ পর্যন্ত ৩৩ বার অগ্ন্যুৎপাত রেকর্ড করা হয়েছে। সর্বশেষ ১৯৮৪ সালে বিস্ফোরণ ঘটেছিল। অতীতের ঘটনাবলীর ওপর ভিত্তি করে এইচভিও সতর্ক করেছে, মাউনা লোয়ার অগ্ন্যুৎপাতের প্রাথমিক পর্যায়গুলো খুব গতিশীল হতে পারে। লাভা প্রবাহের অবস্থান এবং অগ্রগতি দ্রুত পরিবর্তন হতে পারে।

আরেক মার্কিন সংস্থা ন্যাশনাল ওশেনিক অ্যান্ড অ্যাটমোস্ফিয়ারিক অ্যাডমিনিস্ট্রেশন উপগ্রহের মাধ্যমে সরবরাহ করা ছবি এক টুইটে শেয়ার করেছে। সেখানে দেখা গেছে, অগ্ন্যুৎপাত প্রচুর তাপ ছড়াচ্ছে এবং সালফার ডাই অক্সাইড নির্গত হচ্ছে।

মাউনা লোয়া পাঁচটি আগ্নেয়গিরির মধ্যে একটি, যার ফলে হাওয়াই দ্বীপ তৈরি হয়েছিল। দ্বীপপুঞ্জের সর্বদক্ষিণে এর অবস্থান। এর পাশেই রয়েছে কিলাউডা আগ্নেয়গিরি। ২০১৮ সালে এর অগ্ন্যুৎপাতে প্রায় ৭০০ বাড়িঘর ধ্বংস হয়েছিল।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর