আপনি পড়ছেন

উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে বিরল প্রতিক্রিয়া দিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়া। দেশটির প্রেসিডেন্ট ইউন সুক ইওল সতর্ক করেছেন, উত্তর কোরিয়া যদি আবারও পারমাণবিক পরীক্ষা চালায়, তাহলে দক্ষিণ কোরিয়া এমন পদক্ষেপ নেবে যা আগে দেখা যায়নি। মিত্রদের সাথে মিলে যৌথ প্রতিরোধ গড়ে তোলা হবে। উত্তর কোরিয়া যাতে থামে, সেজন্য তিনি চীনকেও সহযোগিতা করার আহ্বান জানিয়েছেন। টিআরটি ওয়ার্ল্ডের খবর।

suk yeol kim jong unকিম জং উন ও ইউন সুক ইওল

গতকাল সোমবার রয়টার্সের সাথে এক সাক্ষাৎকারে ইউন সুক বলেন, উত্তর কোরিয়াকে থামাতে নিরাপত্তা পরিষদে সিদ্ধান্ত নিতে হবে চীনকে, তা না হলে কোরীয় উপদ্বীপে সামরিক সরঞ্জাম আরও প্রবেশ করবে। তিনি মনে করেন, উত্তর কোরিয়াকে থামানোর ক্ষমতা ও কৌশল চীনের হাতে রয়েছে। এই অঞ্চলে শান্তি ও স্থিতিশীলতা বেইজিংয়ের ওপর নির্ভর করছে।

ইউন বলেন, উত্তর কোরিয়ার কর্মকাণ্ড জাপানসহ আশাপাশের দেশগুলোতে উদ্বেগ বাড়াচ্ছে। তারা প্রতিরক্ষা ব্যয় বৃদ্ধির কথাও ভাবছে। মার্কিন যুদ্ধবিমান কিংবা সাগরে জাহাজ মোতায়েনের বিষয়টিও সামনে আসছে। উত্তর কোরিয়াকে থামানোর মধ্যে চীনের স্বার্থ রয়েছে বলেও মনে করেন তিনি।

ইউন হুমকি দেন, আবারও যদি উত্তর কোরিয়া পারমাণবিক পরীক্ষা চালায়, তাহলে দক্ষিণ কোরিয়া এমন কিছু করবে যা আগে দেখা যায়নি। তবে কী করবেন তা বিস্তারিত বলতে অস্বীকার করেন তিনি। সপ্তম পারমাণবিক পরীক্ষা চালানো উত্তর কোরিয়ার জন্য বুদ্ধিমানের হবে না বলেও জানিয়ে দেন তিনি।

উত্তর কোরিয়া এ বছর রেকর্ড ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করেছে। এরই মধ্যে দেশটির শীর্ষ নেতা কিম জং উন গত সপ্তাহে ঘোষণা দেন, তার দেশ বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী পারমাণবিক শক্তি অর্জন করতে চায়। তার এই বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে দক্ষিণ কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র প্রতিক্রিয়া দেয়। তারা মনে করে, ২০১৭ সালের পর উত্তর কোরিয়া আবার পরমাণু বোমার পরীক্ষা চালানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে।

উত্তর কোরিয়ার কর্মকাণ্ড নিয়ে এ বছর বালিতে জি-২০ সম্মেলন, কম্বোডিয়ায় আশিয়ান শীর্ষ সম্মেলন কিংবা ব্যাংককে অ্যাপেক সম্মেলনে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা হয়। জি-২০ সম্মেলনে চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং উত্তর কোরিয়ার সাথে সম্পর্ক বাড়াতে সিউলের প্রতি আহ্বান জানান।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর