আপনি পড়ছেন

রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধে ইউক্রেনের তুরুপের তাস হয়ে উঠেছে হাই মোবিলিটি আর্টিলারি রকেট সিস্টেমস (হিমার্স)। যুক্তরাষ্ট্র থেকে পাওয়া এ মারণাস্ত্রের সুবাদে ইউক্রেনীয়রা রুশ বাহিনীকে অনেক জায়গায় রুখে দিয়েছে। তবে এবার শ্বেতহস্তি হতে চলেছে হিমার্স। ইউক্রেনে শীত মৌসুমের শুরু এবং রুশ বাহিনীর হাতে নতুন সফটওয়্যার চলে আসায় আক্রমণ তো দূরের কথা, হিমার্সের আত্মরক্ষাই কঠিন হয়ে পড়বে। খবর ইউরেশিয়ান টাইমস।

himars okay twsd 2নতুন রুশ সফটওয়্যারের সাহায্যে হিমার্সকে শতভাগ নিখুঁতভাবে ভূপাতিত করা সম্ভব বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন

জাপরোঝঝিয়ায় নিযুক্ত রাশিয়ার বিমান প্রতিরক্ষা ইউনিটের একজন কমান্ডার জানিয়েছেন, সম্প্রতি রুশ এয়ার ডিফেন্স ট্রুপ একটি নতুন সফটওয়্যার পেয়েছে যার সাহায্যে খুব দ্রুত হিমার্স রকেট শনাক্ত ও ভূপাতিত করা সম্ভব। নতুন সফটওয়্যার কাজে লাগিয়ে হিমার্স রকেটের গতিবিধি শতভাগ নিখুঁতভাবে জানা সম্ভব। এর মাধ্যমে রকেটগুলো ভূপাতিত করতে নির্ভুলভাবে গোলা বা মিসাইল ছোঁড়া যাবে।

আরআইএ নভোস্তিকে ওই রুশ কমান্ডার বলেন, শুরুর দিকে হিমার্স এমএলআরএস সম্পর্কে আমাদের ধারণায় কিছুটা অস্পষ্টতা থাকলেও নতুন প্রোগ্রামের কারণে এটিকেও খুব সহজে ধ্বংস করা যাচ্ছে। আমরা এখন অনায়াসে এসব (হিমার্স) রকেট দেখতে, পর্যবেক্ষণ করতে ও ধ্বংস করতে পারছি।

রুশ থিঙ্কট্যাংক এমজিআইএমও সেন্টার ফর মিলিটারি-পলিটিক্যাল স্টাডিজের ডিরেক্টর আলেক্সি পডবেরেজকিন বলেন, নতুন সফটওয়্যার আসার আগেও হিমার্স সিস্টেমের সাহায্যে নিক্ষিপ্ত মিসাইলের ৭০-৮০ শতাংশই ভূপাতিত করা হতো। তবে শতভাগ রকেট ভূপাতিত করা সম্ভব ছিল না। নতুন সফটওয়্যারটির সাহায্যে হিমার্সের গতিবিধি সম্পর্কে শতভাগ নির্ভূল হিসাব-নিকাশ করা সম্ভব হচ্ছে।

রাশিয়ার বিমান প্রতিরক্ষা সিস্টেমের সফটওয়্যার কখন আপডেট করা হয়েছে সে সম্পর্কে কর্মকর্তারা কোনো তথ্য দেননি। এর আগে বলা হয়েছিল, হিমার্স ঠেকাতে রাশিয়া নিজস্ব এমএলআরএস সিস্টেম টর্নেডো-এস মোতায়েন করবে। হিমার্সের মতোই মাল্টিপল লঞ্চ বা একসঙ্গে বহু গোলা ছুঁড়তে সক্ষম টর্নেডো-এস। বরং কিছু ক্ষেত্রে আমেরিকান হিমার্সের চেয়ে রাশিয়ার টর্নেডো-এস বেশি ক্ষমতা রাখে।

ইউক্রেনকে যুক্তরাষ্ট্র যে এম-১৪২ মডেলের হিমার্স দিয়েছে সেগুলো একসঙ্গে ছয়টি ২২৭মিমি জিপিএস-গাইডেড রকেট ছুঁড়তে পারে। লক্ষ্যভেদের ক্ষেত্রে এসব রকেটের যথার্থতার মাত্রা ৫-১০ মিটার, সর্বোচ্চ রেঞ্জ ৮০ কিলোমিটার। অন্যদিকে টর্নেডো-এস একসঙ্গে ৩০টি ৩০০মিমি গ্লনাস রকেট ছুঁড়তে পারে। এসব রকেটের রেঞ্জ ১২০ কিলোমিটার। রকেট লঞ্চিং সিস্টেম হিসেবে টর্নেডো-এস তুলনামূলক বেশি গতিশীল। তিন মিনিটের মধ্যে নতুন একপ্রস্থ গোলা ছুঁড়তে পারে টর্নেডো-এস।

রাশিয়ার নতুন সফটওয়্যারের কারণে হিমার্সের আক্রমণের সক্ষমতা বা কার্যকারিতা অনেকাংশে কমে গেছে। আবার শীত মৌসুম শুরু হওয়ায় ইউক্রেনের আরাধ্য এসব ভারি যন্ত্রপাতি নিজেই টার্গেটে পরিণত হবার ঝুঁকি সৃষ্টি হয়েছে। হিমার্সের যে ‘হাই মোবিলিটি’ তার অন্যতম অনুষঙ্গ ছিল প্রাকৃতিক ঢাল। এক জায়গায় দাঁড়িয়ে গোলা ছুঁড়ে পরমূহূর্তে এক্সেলারেটর চাপিয়ে নিকটস্থ বনভূমি বা গাছপালার আড়ালে লুকিয়ে যেত হিমার্স। কিন্তু শীতের কারণে ইউক্রেনের বনাঞ্চলে পাতা ঝরতে থাকায় হিমার্স সিস্টেমগুলোকে আগের মতো লুকিয়ে রাখা সহজ হবে না। এতে করে হিমার্স নিজেই রাশিয়ার বোমারু বিমান ও মিসাইলের টার্গেটে পরিণত হতে পারে।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর