আপনি পড়ছেন

কয়েক দশক ধরে পূর্ব আফ্রিকায় ভয়াবহ খরা চলছে। ইউক্রেনের নিজস্ব উদ্যোগে পাঠানো একটি শস্য চালান সোমবার জিবুতিতে পৌঁছেছে। এগুলো ইথিওপিয়ার খরা অঞ্চলে অভুক্ত মানুষদের মধ্যে সরবরাহ করা হবে। ইথিওপিয়াতে ইউক্রেনের দূতাবাস বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। চালানটি জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির বাইরের সহায়তা, যাকে মানবিক শস্য চালানের আওতায় ধরা হচ্ছে। এপির খবর।

ukraine grain reach east afখরার মধ্যে পূর্ব আফ্রিকায় পৌঁছেছে ২৫ হাজার টন শস্য

দূতাবাসের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ৩০ হাজার টন গমসহ দ্বিতীয় জাহাজ আগামী সপ্তাহে ইথিওপিয়ায় যাবে। এছাড়া তৃতীয় জাহাজটি সোমালিয়ার উদ্দেশ্যে শিগগির ছেড়ে যাবে। বর্তমানে জাহাজটি ২৫ হাজার টন গম লোড করছে।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি গত মাসে ‌'খাদ্য সংকটে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোকে' সহায়তা দেবেন বলে ঘোষণা দিয়েছিলেন। এখন সেই ঘোষণার বাস্তবায়ন হচ্ছে। ইউক্রেনীয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ইথিওপিয়া, সুদান, দক্ষিণ সুদান, সোমালিয়া, কঙ্গো, কেনিয়া, ইয়েমেন এবং অন্যান্য গরিব দেশে ৬০টিরও বেশি শস্যবাহী জাহাজ পাঠানোর পরিকল্পনা তাদের রয়েছে।

খবরে বলা হচ্ছে, ইথিওপিয়া, সোমালিয়া এবং কেনিয়ার লাখ লাখ মানুষ ক্রমাগত খরার কারণে ক্ষুধার্ত অবস্থায় দিন কাটাচ্ছে। এর মধ্যেই ইথিওপিয়া ও সোমালিয়ায় সহিংস সংঘাত খাদ্য সংকটকে আরও খারাপ করে তুলেছে।

তবে ইউক্রেন থেকে শস্য চালান পাওয়ার বিষয়ে এখনও কোনো মন্তব্য করেনি ইথিওপিয়া। দেশটির প্রধানমন্ত্রী আবি আহমেদ গত আগস্টে ইউক্রেন থেকে ইথিওপিয়ায় শস্য পাঠানো নিয়ে জাতিসংঘের প্রচেষ্টার সমালোচনা করেছিলেন। কারণ ‌'আমরা ক্ষুধার্ত' এমন একটি কার্টুন আঁকায় ক্ষুব্ধ হয়েছিলেন তিনি।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর