আপনি পড়ছেন

নিজের সম্পত্তির ভাগ দাবি করেছিলেন বোন। এরপর থেকেই মাথায় খুনের চিন্তা চেপে বসে ভাই বিবেক পলটকরের মাথায়। একপর্যায়ে একে একে নিজের বোন, দুলাভাই, ভাগ্নি এবং বোনের শাশুড়িকে খুন করে সে। এমনকি বিবেক শেষ পর্যন্ত নিজের ছেলেকেও খুন করে।

man kill five for land

ভারতের নাগপুরে আরাধনা নগর এলাকায় গত ১১ জুনের ওই পাঁচ খুনের ঘটনায় বৃহস্পতিবার বিবেককে গ্রেপ্তার করা হয় বলে শুক্রবার জানায় পুলিশ। শনিবার তাকে আদালতে তোলার কথা রয়েছে। খবর: এনডিটিভি।

জয়েন্ট কমিশনার অব পুলিশ শিবাজি বোদখে বলেন, খুনের ঘটনার পর লুধিয়ানায় পালিয়ে যায় নাগপুরের মৌদা তেসিল এলাকার নভরগাঁও গ্রামের বাসিন্দা বিবেক। নাগপুর পুলিশের অপরাধ বিভাগ তাকে গ্রেপ্তার  করে।

গত ১১ জুন কমলকর পবনকর, তার স্ত্রী অর্চনা, তার মা মীরাবাঈ, তার মেয়ে ভেদান্তি এবং অভিযুক্ত বিবেকের ছেলে কৃষ্ণের লাশ তাদের আরাধনা নগরের বাসায় পাওয়া যায়। তাদের সবাইকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়। পবনকর এবং বিবেকের দুই মেয়ে অন্য কক্ষে অক্ষত ছিল।

পুলিশ কর্মকর্তা শিবাজি বলেন, সম্পত্তির বিরোধে এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। বিবেকের দুলাভাই এবং বোন তার ৯ একরের একটি কৃষি খামারে নিজেদের অংশ দাবি করলে সে ক্ষুব্ধ হয় এবং তাদের হত্যার সিদ্ধান্ত নেয়।

তিনি আরও জানান, বিবেক শুধু পবনকরকে হত্যা করতে চেয়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত নিজের ছেলেসহ বাকিদেরও হত্যা করে। বিবেকের দুই সন্তান বোনের বাসায় থাকতো। সে তাদের ভরণ-পোষণের জন্য টাকা-পয়সা দিতো।

জানা গেছে, স্ত্রীকে হত্যার দায়ে এর আগে বিবেকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হয়েছিল। তবে পরে সে খালাস পায়।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর