সবাই চায় তার বাড়ি জীবানুমুক্ত থাকুক। থাকুক পরিষ্কার। বাড়ি জীবানুমুক্ত করতে সম্ভব্য সব জায়গায় হয়তো যথাসম্ভব ক্লিনও করা হয়। কিন্তু বাড়ির এমন এমন জায়গায় জীবানু তাদের আঁতুড় ঘর বানায় যা জানলে আপনি আশ্চর্যই হবেন।

একবার বাইরে থেকে ঘুরে আসার পরপরই গায়ের কাপড়-চোপড় হয়ে পড়ে জীবানুযুক্ত। তাই পারলে প্রতিদিনই কাপড় ধুয়ে দিন। প্রতি দুই দিনে তো অবশ্যই।

কাপড় ধোয়ার যে মাধ্যম, সেই ওয়াশিং মেশিনও কিন্তু ব্যাকটেরিয়াদের প্রিয় একটা জায়গা। সম্ভব হলে প্রতি সপ্তাহে একবার ওয়াশিং মেশিন পরিষ্কার করুন। পরিষ্কার করার জন্য খুব বেশি কষ্ট করতে হবে না। অল্প পরিমাণে ব্লিচিং পাউডার দিয়ে মেশিন অন করে দিন। সব ধুয়ে মুছে সাফ হয়ে যাবে।

রুমের সামনে রাখা পাপোশের দিকে খুব বেশি একটা নজর দেয়া হয় না। কিন্তু বাইরে থেকে এসে প্রথমে এটাতেই পা মোছা হয়। ফলে দিনে দিনে তারা হয়ে উঠে জীবানুর আখড়া। তাই পাপোশের দিকেও সতর্ক দৃষ্টি দিন।

বেসিনের পাশে রাখা হাত মোছার তোয়ালে দুই-তিন দিন পর পর পাল্টান। কারণ সবার হাতের ছোঁয়ায় তোয়ালে বেচারাও অসুস্থ হয়ে পড়ে।

রান্নাঘরের সিংকের দিকে সজাগ খেয়াল রাখুন। মাঝে মাঝে গরম পানি ঢেলে পরিষ্কার করে নিন জমে থাকা জীবানু বা ব্যাকটেরিয়া।

বালিশের ওয়্যার হচ্ছে জীবানুর আড্ডাখানা। ঘরের সব ঝকঝকে তকতকে হলেও প্রায়ই অনেকের ঘরে বালিশের ওয়্যারের অবস্থা হয় দুর্গন্ধযুক্ত। সাথে বিছানার চাদরও। বিছানার চাদর ও বালিশের ওয়্যার প্রতি সপ্তাহে পরিবর্তন করুন। সম্ভব হলে আরও আগে। এ নিয়ে হেলাফেলা নয়।

 

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর

Get the latest news on lifestyle, health, food, and more from our team of expert writers. From fitness tips and nutrition advice to travel guides and entertainment news, we cover the topics that matter most to you. Whether you're looking to improve your health, broaden your horizons, or just stay up-to-date with the latest trends, you'll find everything you need here.