আপনি পড়ছেন

নিজের সন্তানের দেখাশোনা মায়েরা নিজের হাতে করতেই বেশি ভালবাসেন। বাচ্চাদের নানান কাজে ব্যস্ত থাকেন মায়েরা। সন্তানদের দেখাশোনায় মায়েরা এতো বেশি যত্নবান যে বার বারই মনে হয় সব ঠিকঠাক মতো আছেতো কিংবা বাচ্চা ব্যথা পেল নাতো? কিন্তু যারা নতুন মা হয়েছেন তারা কিছুটা বিভ্রান্তিতে পড়ে যান বাচ্চার লালন-পালনে।

raising children

এসব দ্বিধা কাটিয়ে উঠতে নতুন মায়েদের জন্য রইলো বিশেষ কিছু পরামর্শ-

গোসল করানো, খাওয়ানো, জামা পরানো এসব আপনার বাচ্চার কাছে নতুন তাই এই কাজগুলো শান্তভাবে, ধীরে সুস্থে করুন। এসবে অভ্যস্ত হতে বাচ্চাকে যথেষ্ট সময় দিন।

বাচ্চাদের আচরণের ঠিক ঠিকানা নেই। বাচ্চা একসাথে পেট ভরে নাও খেতে পারে, সারারাত জেগে থাকতে পারে আবার কারণ ছাড়াই কান্না থামিয়ে দিতে পারে তাই বাচ্চার যখন যা প্রয়োজন তা আন্দাজ করে নিজেদের তৈরী রাখুন।

জন্মের প্রথম কয়েক মাস বাচ্চার প্রয়োজন খুবই সীমিত। তাই বিভিন্ন খেলনা, দামি টয়লেট্রিজ বা ঝকমকে জামাকাপড় কেনার চাইতে ওর প্রাথমিক প্রয়োজন যেমন দুধ, ঊষ্ণতা, পরিচ্ছন্নতা এবং সঠিক সময় দেওয়াতে মনোযোগী হন।

বাচ্চাকে 'সঙ্গ দেওয়া' দেখাশোনার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অংশ। বাচ্চার সঙ্গে শান্ত স্বরে, ধীর লয়ে কথা বলুন। গান, ছড়া বা গল্পও বলতে পারেন ঘুম পাড়ানোর সময়।

 

আপনি আরও পড়তে পারেন

হয়ে উঠুন ইতিবাচক অভিভাবক

আপনার সন্তানের ইন্টারনেট ব্রাউজিং

কাজে যখন উৎসাহ নেই