আপনি পড়ছেন

গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তোরাঁয় ঘটে যাওয়া নজিরবিহীন ঘটনার ধিক্কার জানিয়েছেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া। ঘটনাটিকে তিনি ‘দেশে বিরাজমান দুঃশাসনের বহিঃপ্রকাশ’ বলে আখ্যায়িত করেন।

begum khaleda zia

বাংলাদেশে এ ধরনের ঘটনা আগে আর কখনো ঘটেনি। দীর্ঘ ১১ ঘণ্টার জিম্মি-সংকটের পর যৌথ বাহিনীর অভিযানে হামলাকারীদের নির্মূল করা হয়। খালেদা জিয়া এ ঘটনার ধিক্কার জানিয়ে বলেন, ‘গতকাল রাত থেকে আজ সকাল পর্যন্ত দুষ্কৃতিকারীদের কর্তৃক সংঘটনিত প্রাণবিনাশী ঘটনায় তিব্র নিন্দা জানাচ্ছি।’

খালেদা জিয়া বলেন, ‘আমরা সরকারকে উগ্রবাদীদের অমানবিক রক্তঝরা অশুভ পরিকল্পনা মোকাবিলা করার জন্য দলমত নির্বিশেষে পদক্ষেপ গ্রহণ করতে আহ্বান করেছিলাম। কিন্তু সরকার আমাদের উপেক্ষা করেছে।’

বেগম জিয়া তার বিবৃতিতে অভিযোগ করেন যে, সরকার প্রকৃত জঙ্গি ধরার তৎপরতা না দেখিয়ে বিএনপিকে অভিযুক্ত করে জঙ্গিদের সহায়তা করেছে।

তিনি বলেন, ‘অগণতান্ত্রিক শাসনব্যবস্থার ফলে যে অগণতান্ত্রিক সংস্কৃতি সৃষ্টি হয়েছে, তা এমন এক রাজনৈতিক পরিস্থিতি তৈরি করেছে, যা পৈশাচিক স্বৈরতন্ত্রে অধঃপতিত হয়েছে। এর বিকৃত প্রতিক্রিয়া সরা দেশে ফুটে উঠতে শুরু করছে।’

গুলশানের ঘটনার বিষয়ে খালেদা জিয়া বলেন, ‘গত রাতের (পহেলা জুলাই রাত) দুষ্কৃতিকারীদের নির্মম রক্তাক্ত অভ্যত্থান দেশে বিরাজমান দুঃশাসনেরই বহিঃপ্রকাশ।’

কিছুদিন আগে জঙ্গি দমনে সরকারের উদ্যোগের সমালোচনা করে খালেদা জিয়া বলেন, ‘জঙ্গি দমনের নামে সরকারি অভিযানের যে ভয়াবহ রূপ জনগণ দেখল, তা ছিলো বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল ও গণতান্ত্রিক শক্তিতে ধ্বংস করার জন্য।’

জঙ্গি দমনের নামে সরকার চার হাজারের বেশি বিএনপির নেতা-কর্মীদের এবং সাধারণ মানুষদের গ্রেফতার করেছে বলে অভিযোগ করেন সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী।

আপনি আরো পড়েত পারেন

শাহরিয়ার কবির: গুলশানের ঘটনায় জামায়াত জড়িত

সেনাবাহিনীর বিবৃতি: গুলশানের জিম্মি- ঘটনায় ২০ লাশ উদ্ধার

গুলশানের ঘটনায় ৬ ইতালীয় নিখোঁজ

চার লেনের দুই মহাসড়ক উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

আজ পবিত্র লাইলাতুল ক্বদর

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর