আপনি পড়ছেন

চলছে কাঠালের মৌসুম। ঘর থেকে বের হলেই চোখে পড়ছে কাঁঠালের স্তূপ। বাজারে, ফুটপাতে, ভ্যানে সব জায়গাতেই। তবে কাঁঠাল খেতে সবাই যে পছন্দ করেন, তা কিন্তু নয়।

life 1কাঁঠাল বিচি শুধু খাবার হিসেবেই নয় ব্যবহার হচ্ছে রূপচর্চাতেও

আবার কাঁঠালেরও আছে নানা জাত; কোনোটা নরম, কোনোটা শক্ত, আবার কোনোটা শক্ত-নরমের মিশেল। কোনোটা মিষ্টি, কোনোটা হালকা মিষ্টি, আবার কোনোটা পানসে। তবে কাঁঠালের বীচি কিন্তু প্রায় একই ধরনের।

আমাদের দেশে এরই মধ্যে এটি ভালো একটি তরকারি হিসেবে পাতে ওঠে এসেছে। তবে এই কাঁঠালের বীচি দিয়েই যে ঘরোয়া রূপচর্চা সেরে ফেলা যায় তা বোধ করি অনেকেরই অজানা। চুল ও ত্বকের পরিচর্যায় কাঁঠাল বিচি একবার ব্যবহার করে দেখতেই পারেন।

life 2কোনোভাবেই ফেলনা নয় এ কাঁঠাল বিচি

চারপশের দূষণের কারণে এখন আগের চেয়ে চুল পড়ার হার অনেক বেড়ে গেছে। এমনকি স্বাভাবিক ঔজ্জ্বল্যও হারাচ্ছে চুল। এসব ক্ষেত্রে কাঁঠাল বিচি ভালো একটি ভূমিকা রাখতে পারে। কারণ এতে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন, ভিটামিন এ ও আয়রন রয়েছে।

প্রোটিন চুলকে মজবুত রাখার পাশাপাশি চুল পড়া কমায়। ভিটামিন এ মাথার ত্বকের তৈলাক্ত পদার্থ সিবাম তৈরিতে সহায়তা করে এবং চুলে কোষের বৃদ্ধিও ঘটায়। এছাড়া কাঁঠাল বিচিতে থাকা প্রচুর পরিমাণ আয়রন মাথার ত্বকে রক্ত চলাচল বাড়াতে সহায়তা করে।

ভিটামিন ও অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট থাকায় কাঁঠাল বিচি ত্বকের বলিরেখাও দূর করতে পারে। ভিটামিন এ সিবামের নিঃসরণের মাধ্যমে ত্বককে আর্দ্র রাখে কাঁঠাল বিচি। আর এতে থাকা শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট বাঁচায় ত্বকের কোষের ক্ষতি হওয়ার হাত থেকে।

চুলের যত্নে কাঁঠাল বিচি: কাঁঠাল বিচি প্রথমে পানিতে ১ ঘণ্টা ভিজিয়ে রাখতে হবে। তবে এটি কিছুটা পুরনো হলে পানিতে না ভিজালেও চলবে। সেক্ষেত্রে উপরের সাদা খোসাটি ফেলে দিতে হবে। এর পরে তা দুধে ভিজিয়ে রাখতে হবে কিছুক্ষণ। পরে কাঁঠাল বিচি নরম হয়ে এলে দুধের সাথে ব্লেন্ডারে দিয়ে মিশ্রণ তৈরি করতে হবে। তৈরি হয়ে গেল চুলের জন্য কাঁঠাল বিচির মাস্ক।

এ মিশ্রণ মাথার ত্বকে ভালভাবে মাখিয়ে আধ ঘণ্টা রেখে দিতে হবে। তারপর শ্যাম্পু করে হাল্কা গরম জল দিয়ে মিশ্রণ বা মাস্ক ধুয়ে ফেলতে হবে। সপ্তাহে দু’দিন এই মাস্ক ব্যবহার করতে হবে।

ত্বকের জন্য কাঁঠাল বিচির মাস্ক: ২ টেবিল চামচ কাঁঠাল বিচি বাটা, ১ টেবিল চামচ দুধ, ২ টেবিল চামচ মধু মিশিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করতে হবে। এবার এটা ২০ মিনিট মুখে লাগিয়ে রেখে পরে হাল্কা গরম পানি দিয়ে সেটা ধুয়ে ফেলতে হবে। সপ্তাহে দুয়েকবার ব্যবহার করলেই বেশ ভালো রকম উপকার পাওয়া যাবে।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর