advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 34 মিনিট আগে

শুরু হয়ে গেল বিশেষ টুর্নামেন্ট বঙ্গবন্ধু  বিপিএল। বাইশ গজে ব্যাট-বলের যুদ্ধে অংশ নেওয়া দলগুলোকে নিয়ে ধারাবাহিক প্রতিবেদনের এই পর্বে থাকছে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। কেমন হলো দলটা? চট্টগ্রামের সার্বিক বিষয়াদি টোয়েন্টিফোর লাইভ নিউজ পেপারের পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো:

chittagong challengers

বিপিএল মানেই চট্টগ্রামের জন্য হাহাকার। এখন পর্যন্ত টুর্নামেন্টের শিরোপা জিততে পারেনি চট্টগ্রামের কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি। এবার স্বপ্নপূরণে মরিয়া হয়ে মাঠে নেমেছে তারা। তবে সেটা নতুন নামে। চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স বিশেষ টুর্নামেন্ট বঙ্গবন্ধু বিপিএলের চ্যাম্পিয়ন হওয়ার চ্যালেঞ্জ নিয়েছে।

এ যাত্রায় শুরুটা দারুণ হয়েছে তাদের। সিলেট থান্ডারকে পাঁচ উইকেটে হারিয়ে স্বপ্নযাত্রা শুরু করেছে বন্দর নগরীর দলটি। এই ম্যাচে ইনজুরির কারণে ছিলেন না দলের নিয়মিত অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। চোটের অস্বস্তি আছে দলের সবচেয়ে বড় তারকা ক্রিস গেইলেরও।

তাই বছরের বাকি সময়টুকু বিশ্রামে থাকবেন ‘ইউনিভার্স বস’। সিলেট পর্বের আগের গেইলকে পাচ্ছে না চট্টগ্রাম। দলের পরে ম্যাচেও নিয়মিত অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ থাকবেন দর্শক সারিতে। তাদের অনুপস্থিতির পরও সিলেটকে যেভাবে চট্টগ্রাম উড়িয়ে দিয়েছে তাতে বলা বাহুল্য দলটা যথেষ্ঠ শক্তিশালী।

বঙ্গবন্ধু বিপিএলে অংশ নেওয়া বাকি ছয়টি দলের চেয়ে চট্টগ্রাম একটু আলাদা। অন্যদের বিপিএল শুরু হয়েছে নীরবে। কিন্তু ঢাকঢোল পিটিয়ে নিজেদের আগামনী বার্তা দিয়েছে তারা। আড্ডা ও খুনসুটির অনুষ্ঠানের মাধ্যমে জার্সি উন্মোচন করেছে বন্দর নগরীর দলটি। সেখানেই অধিনায়কসহ সবার সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হয়।

এবারের আসরে ছয়টি দল নিয়োগ দিয়েছি বিদেশি কোচকে। সেই ধারাবাহিকতায় চট্টগ্রামের দায়িত্ব পেয়েছেন পল নিক্সন। তার সহকারী স্থানীয় বোলিং কোচ কবির আলি। চট্টগ্রামের ম্যানেজার ফাহিম মুনতাসির। দলের পরিচালনায় থাকছেন বিসিবির প্রতিনিধি জালার ইউনুস।

চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স তরুণ ও অভিজ্ঞ ক্রিকেটারদের মিশেলে গড়া। অভিজ্ঞদের মধ্যে আছেন মাহমুদুল্লাহ, নাসির, রুবেল, ইমরুল কায়েসের মতো ক্রিকোটররা। সবমিলিয়ে জাতীয় দলে খেলা আটজন ক্রিকেটার খেলছেন এই দলে। তাই পারষ্পারিক সমঝোতা ও দলীয় ঐক্যের হিসেবে সবচেয়ে এগিয়ে আছে চট্টগ্রাম।

দলটার বিদেশি রিক্রুটও ভালোই হয়েছে। গেইল বিপিএলের প্রথম দুই পর্ব মিস করলেও এই মুহূর্তে দলে আছেন রায়ার্ন বার্ল, আভিষ্কা ফার্নান্দো ও রায়াদ এমরিত। শেষ জন তো চট্টগ্রামকে প্রথম ম্যাচেই নেতৃত্ব দিয়েছেন। ব্যাটিংয়ের মতো তাদের বোলিং বিভাগও আশা জাগানিয়া। আছেন কেসরিক উইলিয়ামস, ইমাদ ওয়াসিমদের মতো পেসাররা। স্পিন বিভাগে আছেন এনামুল হক জুনিয়র ও জুবায়ের হোসেন লিখন।

অধিনায়ক: মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ

প্রধান কোচ: পল নিক্সন

পরিচালনায়: জালাল ইউনুস

সাফল্য: রানার্সআপ (২০১২-১৩ মৌসুম)

পুরনো নাম: চিটাগং কিংস, চিটাগং ভাইকিংস

পৃষ্ঠপোষক: আক্তার ফার্নিশার্স

চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স স্কোয়াড

দেশি: মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), ইমরুল কায়েস, নাসির হোসেন, রুবেল হোসেন, নুরুল হাসান সোহান, এনামুল হক জুনিয়র, মুক্তার আলি, পিনাক ঘোষ, মাসুম আহমেদ, জুনায়েদ সিদ্দিকী, জুবায়ের হোসেন লিখন।

বিদেশি: ক্রিস গেইল, কেসরিক উইলিয়ামস, আভিষ্কা ফার্নান্দো, রায়াদ এমরিত, রায়ান বার্ল, ইমাদ ওয়াসিম।

sheikh mujib 2020