advertisement
আপনি দেখছেন

টেস্ট ক্যারিয়ারের শুরুর দিকটায় সেঞ্চুরির জন্য বেশ কাঠখড় পোড়াতে হয়েছে মার্নাস লাবুশেনকে। সেই তিনিই পরপর তিন টেস্ট করলেন সেঞ্চুরি। ব্যাট হাতে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের পুরস্কারটা হাতে নাতেই পেয়েছেন অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যান। প্রথমবারের মতো চলে এসেছেন ব্যাটসম্যানদের টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ের সেরা পাঁচে।

marnus labuschagne

এবার আরো একটা পুরস্কার পেলেন লাবুশেন। ২৫ বছর বয়সী তারকা ডাক পেয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার ওয়ানডে দলে। মঙ্গলবার ভারত সফরের জন্য অজিরা যে দল ঘোষণা করেছে সেখানে রাখা হয়েছে লাবুশেনকে। আগামী ১৪, ১৭ ও ১৯ জানুয়ারি তিনটি ওয়ানডে অনুষ্ঠিত হবে যথাক্রমে মুম্বাই, রাজকোট ও ব্যাঙ্গালুরুতে।

মানসিক অবসাদ দূর করতে ক্রিকেট থেকে সাময়িক নির্বাসনে গিয়েছিলেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। সম্প্রতি ক্রিকেটে ফিরেছেন তিনি। কিন্তু জাতীয় দলে ফেরার জন্য আরো কিছুদিন অপেক্ষায় থাকতে হবে বিধ্বংসী এই অলরাউন্ডারকে। ম্যাক্সওয়েলের জায়গা হয়নি ভারত সফরের ওয়ানডে দলে।

এ বছর টেস্ট ক্রিকেটে সবচেয়ে বেশি রান লাবুশেনের। বছরের শুরুর দিকটায় র‌্যাঙ্কিংয়ে এক শর বাইরে থাকা এই তারকা বছরান্তে চলে এসেছেন সেরা পাঁচে। ওয়ানডে দলে তার ডাক পাওয়াটা অনুমিতই ছিল। শুধু টেস্ট ক্রিকেটেই নয়, ঘরোয়া ওয়ানডে ক্রিকেটেও রানের বন্য বইয়ে দিয়েছেন লাবুশেন।

স্বীকৃতি হিসেবে ঘরোয়া টুর্নামেন্টের সেরা হয়েছিলেন তিনি। যৌথভাবে সেরা খেলোয়াড় হিসেবে তার সঙ্গী ছিলেন উসমান খাজা। যদিও ভারত সফরের জন্য উসমানকে বিবেচনা করেননি অজি নির্বাচকরা। এ ছাড়া দল থেকে বাদ পড়েছেন শন মার্শ, নাথান লায়ন, মার্কাস স্টয়নিস ও নাথান কল্টার-নিলে। ইনজুরি ছিটকে দিয়েছে জেসন বেহরেনর্ডফকে।

কল্টার-নিলেকে বাদ দিয়ে জশ হ্যাজলউডকে ডেকে পাঠিয়েছেন নির্বাচকরা। ইনজুরির কারণে বিশ্বকাপ খেলতে পারেননি তিনি। সম্প্রতি আগুনে ফর্ম নিয়ে ফিরেছেন হ্যাজলউড। ভারতের বিপক্ষে পেস আক্রমণের নেতৃত্বে থাকবেন হ্যাজলউড ও মিচেল স্টার্ক। স্পিন বিভাগের দায়িত্ব অ্যাডাম জাম্পা ও অ্যাস্টন অ্যাগারের।

অস্ট্রেলিয়া দল: অ্যারন ফিঞ্চ (অধিনায়ক), প্যাট কামিন্স, স্টিভেন স্মিথ, ডেভিড ওয়ার্নার অ্যালেক্স ক্যারি, শন অ্যাবট, অ্যাস্টন অ্যাগার, পিটার হ্যান্ডসকম, মার্নাস লাবুশেন, কেন রিচার্ডসন, অ্যাস্টান টার্নার, অ্যাডাম জাম্পা, জশ হ্যাজলউড ও মিচেল স্টার্ক।