advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 23 মিনিট আগে

প্রথম ওয়ানডেতে হেসেখেলেই ভারতকে হারিয়ে দিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। দ্বিতীয় ম্যাচেই মধুর প্রতিশোধ নিল বিরাট কোহলির দল। মঙ্গলবার রানের পাহাড় গড়ে ক্যারিবীয়দের ১০৭ রানের বিশাল ব্যবধানে হারিয়েছে স্বাগতিক ভারত। রবিবার কটাকে সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে।

rohit and rahul celebration

টানা দ্বিতীয় ওয়ানডেতে টস হেরেছেন কোহলি। ব্যাটিংয়ে নেমে রোহিত শর্মা ও লোকেশ রাহুলের ঝড়ো সেঞ্চুরিতে পাঁচ উইকেটে ৩৮৭ রান করেছে ভারত। জবাব দিতে নেমে মোহাম্মদ শামির দারুণ বোলিং ও কুলদ্বীপ যাদবের হ্যাটট্রিকে ইনিংসের ৩৯ বল বাকি থাকতেই ২৮০ রানে গুটিয়ে গেছে ক্যারিবীয়রা।

বিশাখাপত্মমে ম্যাচের ভাগ্য নির্ধারণ হয়ে গেছে ভারতের ইনিংস শেষেই। দলের রানপাহাড়ের ভিত গড়ে দেন দুই ওপেনার রোহিত ও রাহুল। উদ্বোধনী জুটিতে দুজন মিলে যোগ করেন ২২৭ রান। জুটি ভাঙে রাহুল ১০২ রানে বিদায় নিলে। একদিনের ক্রিকেটে এটা তার তৃতীয় শতক।

রোহিত ব্যক্তিগত সংগ্রহ ছাড়িয়েছেন দেড় শ। ১৩৮ বলের ইনিংসে ১৫৯ রান করেছেন বিধ্বংসী ওপেনার। ক্যারিয়ারের ২৮তম শতক হাঁকানো ও ম্যাচজয়ী ইনিংসে ১৭টি চার ও পাঁচটি ছক্কা মেরেছেন রোহিত। তার সঙ্গী রাহুল আটটি চার ও তিন ছক্কায় ইনিংসটি সাজিয়েছিলেন।

পরে শ্রেয়ার আইয়ার ও ঋষভ প্যান্টের ঝড়ো ইনিংস ভারতের রানার চাকায় দিয়েছে বাড়তি গতি। ৩২ বলে ৫৩ রান করেছেন শ্রেয়াস। ১৬ বলে ৩৯ রানের বিস্ফোরণ ঘটে প্যান্টের ব্যাটে। দুজনই ইনিংসে তিনটি চার ও চারটি ছক্কা হাঁকিয়েছেন। ভারতের পতন হওয়া পাঁচ উইকেটের দুটি করে নিয়েছেন শেল্ডন কটরেল। একটি করে শিকার কিমো পল, আলজারি জোসেফ ও কাইরেন পোলার্ডের।

লক্ষ্যটা পাহাড়সম। তবু ওয়েস্ট ইন্ডিজের শুরুটা হলো আশা জাগানিয়া। কিন্তু একাদশতম ওভারে ৬১ রানে উদ্বোধনী জুটি বিচ্ছিন্ন হতেই একটা ধাক্কা খায় ক্যারিবীয়রা। দলীয় ৮৬ রানের মধ্যে আরো দুই উইকেটের পতন। ওপেনার এভিন লুইস ৩৫ বলে ৩০ রানে ফিরে গেছেন সাজঘরে। ইনিংস সাজিয়েছেন পাঁচটি চারে।

চতুর্থ উইকেট জুটিতে হাল ধরেন আরেক ওপেনার শাই হোপ ও নিকোলাস পুরান। প্রথমজন যতটা শান্ত ছিলেন ততটাই আগ্রাসী ছিলেন দ্বিতীয়জন। দলীয় সংগ্রহ দুশো ছোঁয়ার আগে এই জুটি বিচ্ছিন্ন হতেই শেষ হয়ে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের জয়ের আশা। দ্রুত গতিতে রান তুলতে গিয়েই উইকেট দিয়ে আসতে হয়েছে পুরানকে।

ছয়টি করে চার-ছক্কায় ৪৭ বলে ৭৫ রানের বিধ্বংসী ইনিংস খেলে আউট হন পুরান। তার সঙ্গী হোপ সাতটি চার ও তিন ছক্কায় করেন ৮৫ বলে ৭৮ রান। কিন্তু বৃথা গেছে দুজনের ইনিংস দুটি। কাজে আসল না কিমো পলের ৪২ বলে ৪৬ রানের ইনিংসটিও। তাদের ইনিংসগুলো শুধু হারের ব্যবধান কমিয়েছে মাত্র।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ যখন হার ঠেকাতে লড়ছে তখনই তাদের ফেরার সম্ভাবনা শেষ করে দেন কুলদ্বীপ। ৩৩তম ওভারে করেন দুর্দান্ত এক হ্যাটট্রিক। চায়ানম্যান বোলার ধস নামিয়েছেন ক্যারিবীয়দের লোয়ার অর্ডারে, মিডল অর্ডার গুঁড়িয়ে দিয়েছেন শামি। দুটি শিকার রবিন্দ্র জাদেজার।

sheikh mujib 2020