advertisement
আপনি দেখছেন

হারারে টেস্টে আশা জাগিয়েও পারল না স্বাগতিক জিম্বাবুয়ে। বৃহস্পতিবার প্রথম টেস্টের পঞ্চম ও শেষ দিনে তাদের সবচেয়ে বড় সাফল্য শ্রীলঙ্কাকে ব্যাটিংয়ে নামানো। তাদের প্রাথমিক লক্ষ্য পূরণ হয়েছে। কিন্তু স্বপ্নপূরণ হয়নি। লঙ্কানদের কাছে ১০ উইকেটে হেরে গেছে জিম্বাবুইয়ানরা।

kumara is ecstatic after taking a wicket

ঘরের মাঠে শেষ দিন ইনিংস হার এড়াতে জিম্বাবুয়ের দরকার ছিল ১২৭ রান। সেই পথ পেরিয়ে গিয়েছিল স্বাগতিক শিবির। বড় লিডের পথে ছিল তারা। কিন্তু হঠাৎই শেষের ঝড়ে থেমে যায় জিম্বাবুয়ে। দ্বিতীয় ইনিংসে তারা গুটিয়ে যায় ১৭০ রানে। প্রথম ইনিংসে ৩৫৮ রান করেছিল জিম্বাবুয়ে।

সফরকারী শ্রীলঙ্কা লক্ষ্যমাত্রা পায় মাত্র ১৪ রানের। কোনো উইকেট না হারিয়েই শেষ বিকেলে জয় তুলে নেয় লঙ্কানরা। প্রথম ইনিংসে নয় উইকেটে ৫১৫ রানে ইনিংস ঘোষণা করে তারা। বড় সংগ্রহের গড়ে দিয়েছেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস; করেন স্বপ্নের ডাবল সেঞ্চুরি। ক্যারিয়ার সেই ওই ইনিংসেই লঙ্কান অলরাউন্ডার পেয়েছেন ম্যাচ সেরার স্বীকৃতি।

এর আগে বিনা উইকেটে ৩০ রানে পঞ্চম দিনের খেলা শুরু করে জিম্বাবুয়ে। আগের দিন অজেয় থাকা দুই ওপেনার প্রিন্স মাসভার ও ব্রায়ান মুদজিঙ্গানিয়ামা এদিন সাজঘরে ফিরেছেন সাত-সকালেই। প্রথমজন ১৭ এবং দ্বিতীয়জন ১৬ রানে আউট হন। তিনে নামা ক্রেইগ আরভিন সাত রানে ফিরেছেন।

অধিনায়ক শন উইলিয়ামসকে নিয়ে ব্রেন্ডন টেলর চতুর্থ উইকেটে ৭৯ রানের জুটিতে প্রতিরোধ গড়লেও তা গুঁড়িয়ে গেছে। টপ অর্ডারের চার ব্যাটসম্যানকেই সাজঘরের পথ দেখান সুরঙ্গ লাকমল। পরে দুই উইকেট নিয়ে মিডল অর্ডারে ধস নামান এম্বুলডেনিয়া। লাহিরু কুমারা শেষ দুই উইকেট নিয়ে গুটিয়ে দেন জিম্বাবুয়েকে।

দ্বিতীয় ইনিংসে স্বাগতিকদের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩৯ রান করেন উইলিয়ামস। তার চেয়ে এক রান কম করেছেন টেলর। এ ছাড়া রেজিস চাকাভা ২৬ রান করেন। ১৭ রান এসেছে সিকান্দার রাজার ব্যাট থেকে। তাদের সম্মিলিত প্রচেষ্টার ফল হিসেবে ইনিংস হার এড়িয়েছে জিম্বাবুয়ে। স্বাগতিকদের জন্য এটাই সবচেয়ে বড় স্বস্তির।

দাপুটে এই জয়ে দুই ম্যাচের সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেছে শ্রীলঙ্কা। ২৭ জানুয়ারি একই ভেন্যুতে দ্বিতীয় তথা শেষ টেস্ট অনুষ্ঠিত হবে।