advertisement
আপনি দেখছেন

জয়ের প্রায় দ্বারপ্রান্তেই ছিল স্কটিশরা। শেষ ওভার অর্থাৎ শেষ ৬ বলে দরকার ছিল ১৩ রানের। হাতে ছিল চার চারটি উইকেট। অথচ তীরে এসে তরী ডুবল। স্কটল্যান্ডের কাছে খলনায়ক বনে গেলেন প্রতিপক্ষের মাসাকাদজা। কারণ তার ওভারেই জয় থেকে বঞ্চিল হল স্বাগতিকরা। এই জয়ের মাধ্যমে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে ১-১ ব্যবধানে সমতায় ফিরল ক্রেইগ আরভিনের দল।

masakadza celebration scotlandশেষ ওভারে জয়ের নায়ক বনে মাসাকাদজার উদযাপন

এডিনবার্গে এদিন সিরিজের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামে জিম্বাবুয়ে। নির্ধারিত ওভারে ৫ উইকেটে ১৩৬ রানের একটি লড়াকু ইনিংস পায় সফরকারীরা। যেখানে সবচেয়ে অবদান শন উইলিয়ামসের। ব্যাট হাতে ৫২ বলে অপরাজিত ৬০ রান করেন তিনি। এর মধ্যে ছিল ৫টি চার ও ১টি ছয়ের মার। এ ছাড়া ৩৬ রান করেন অধিনায়ক আরভিন।

জয়ের লক্ষ্যে মাঠে নেমে সঠিক পথেই এগুচ্ছিল স্বাগতিকরা। তবে শেষ পর্যন্ত তাদের ১৯.৪ ওভারে ১২৬ রানে থেমে যেতে হয়। ইনিংসের এক পর্যায়ে জয়ের জন্য ১৮ বলে ২৭ রান দরকার ছিল স্কটল্যান্ডের। শেষ ওভারে গিয়ে সেই সমীকরণ দাঁড়ায় ১৩ রানে। অর্থাৎ সিরিজ নিশ্চিত করতে ৬ বলে ১৩ রান দরকার ছিল স্কটিশদের।

তবে বল হাতে তখন রুদ্র মূর্তি ধারণ করেন প্রতিপক্ষ দলের স্পিনার ওয়েলিংটন মাসাকাদজা। শেষ ওভারের প্রথম চার বলে ঘটে এক নাটকীয় ঘটনা। ওভারে প্রথম বলেই ২ রান করা শাফায়ান শরীফকে সাজঘরে পাঠিয়ে দেন তিনি। পরের বলে দুই রান নিতে গিয়ে রান আউট হন শূন্য রানে থাকা মার্ক ওয়াট। তৃতীয় বলটি গ্লাভসবন্দি করেন উইকেটরক্ষক উইলিয়ামস, ব্যক্তিগত ২৫ রানে সাজঘরে ফেরেন মাইকেল লিস্ক। চতুর্থ বলে শেষ উইকেট হিসেবে রান আউট হন ব্যক্তিগত ১ রান করা অ্যালাসয়োর ইভান্স।

স্কটল্যান্ডের পক্ষে রিচি বেরিংটন ৪৩ বলে সর্বোচ্চ ৪২ এবং উইকেটরক্ষক ম্যাথু ক্রসের ৩৫ বলে ৪২ রান করেন। সেই সুবাদে জয়ের পথেই ছিল স্বাগতিকরা। তবে শেষ ওভারে রোমাঞ্চ ছড়িয়ে দলকে সমতায় ফেরান মাসাকাদজা। ৩.৪ ওভার বল করে ১৯ রান দিয়ে ২ উইকেট নিয়েছেন তিনি। অবশ্য রিচার্ড এনগারাভা ৪ ওভারে ১৩ রান দিয়ে একই সংখ্যক উইকেট নিয়েছেন। ম্যাচ সেরাও হয়েছেন তিনি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

জিম্বাবুয়ে: ১৩৬/৫ (২০ ওভার): উইলিয়ামস ৬০*, আরভিন ৩০

স্কটল্যান্ড: ১২৬ (১৯.৪ ওভার): বেরিংটন ৪২, ক্রস ৪২, এনগারাভা ২/১৩, মাসাকাদজা ২/১৯

ফলাফল: জিম্বাবুয়ে ১০ রানে জয়ী।