advertisement
আপনি পড়ছেন

করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রন প্রথম মাথাচাড়া দিয়েছিল আফ্রিকা অঞ্চলে। বর্তমানে বাংলাদেশেও ওমিক্রনের সংক্রমণ বাড়ছে। আর মাত্র ৬ দিন পরই পর্দা উঠবে বিপিএলের অষ্টম আসরের। বিদেশি ক্রিকেটাররা ১৬-১৭ জানুয়ারি ঢাকায় আসবেন। বিদেশি ক্রিকেটার এবং বিশেষ করে আফ্রিকা থেকে আসা ক্রিকেটারদের নিয়ে করোনাকালে কোয়ারেন্টাইন, করোনা পরীক্ষার নিয়ম এখনও চূড়ান্ত করেনি বিসিবি। এ বিষয়ে সরকারের নির্দেশনার অপেক্ষায় আছে সংস্থাটি।

bpl 2022 1বিপিএল-২০২২

জানা গেছে, টিম হোটেলে উঠার আগে দেশীয় ক্রিকেটারদের একবার করোনা নেগেটিভ রিপোর্ট পেতে হবে। বিদেশি ক্রিকেটারদের ক্ষেত্রে দুইবার নেগেটিভ রিপোর্ট লাগবে। আফ্রিকা থেকে ফাফ ডু প্লেসিস, ক্যামেরন ডেলপোর্ট, সিকান্দার রাজারা আসবেন বিপিএল খেলতে। ইংল্যান্ড থেকে মঈন আলী, ওয়েস্ট ইন্ডিজ থেকে আসবেন সুনীল নারিন। সার্বিক ব্যবস্থাপনা নিয়ে জানতে সরকারের কাছে চিঠি দিয়েছে বিসিবি।

শনিবার বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশিষ চৌধুরী সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, ‘আমরা একটা চিঠি দিয়েছি। গত ৩ জানুয়ারি আন্তঃমন্ত্রণালয় একটা মিটিং ছিল। এরপর তারা আমাদেরকে মৌখিকভাবে জানিয়েছে। তবে আমরা এখনো চিঠিটি হাতে পাইনি, আশা করছি আগামী রোববার হাতে পাব। যদি শিথিল হয় সেক্ষেত্রে তাদের জন্য বাড়তি বিধিনিষেধ থাকছে না।’

debashish chowdhury bcbদেবাশিষ চৌধুরী, ফাইল ছবি

আগামী ১৭ জানুয়ারি বিপিএলের দলগুলো টিম হোটেলে উঠবে। সব ক্রিকেটারকে ডাবল ডোজ করোনার টিকা নেয়া থাকতে হবে। বিসিবির প্রধান চিকিৎসক বলেন, ‘এবার খুবই সহজ প্রক্রিয়া। সব ক্রিকেটারকে ডাবল ডোজ টিকা নেওয়া থাকতে হবে। তারা হোটেলে উঠার আগে একবার করোনাভাইরাস পরীক্ষা করাবে। ফল নেগেটিভ এলে হোটেলে উঠে যাবে। বিদেশি ক্রিকেটারদের ডাবল ডোজ টিকা নেওয়া থাকতে হবে এবং এখানে এসে দুই বার করোনাভাইরাস পরীক্ষা দিতে হবে। রেজাল্ট নেগেটিভ এলে তারাও হোটেলে উঠে যাবে।’

টুর্নামেন্ট চলাকালীন প্রতিবার ভ্রমণের পর করোনা পরীক্ষা করা হবে সবার। বিপিএলে এবার ঢাকা, চট্টগ্রাম ও সিলেটে খেলা হবে। দেবাশীষ চৌধুরী বলেন, ‘এবার উপসর্গ দেখা দিলে টেস্ট তো থাকছেই। টুর্নামেন্ট চলাকালে মাঝে বেশ কিছু টেস্ট হবে। তবে এবার যেহেতু তিনটি ভিন্ন ভেন্যুতে খেলা হচ্ছে, অনেকবার ট্রাভেল করতে হবে। আমরা যদি প্রতি ছয়দিন পর টেস্ট করি, তবে শিডিউলে একটু সমস্যা হচ্ছে। আমাদের পরিকল্পনায় আছে ছয়দিন পর পর না করে প্রতি ট্রাভেলের পর করা। যেমন ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম যাওয়ার পর টেস্ট হবে, সিলেট থেকে ঢাকায় ফেরার পর টেস্ট হবে। তবে এটি এখনো নিশ্চিত হয়নি। আলোচনা চলছে।’