advertisement
আপনি পড়ছেন

ঘুষ গ্রহণ, অর্থ আত্মসাৎ এবং শপথভঙ্গ; এই তিন তিনটি অপরাধের জন্য আদালতে দৌড়াতে হচ্ছে স্যামসাং প্রধান লি জা ইয়ং। বাদী পক্ষ আদালতের কাছে তাকে গ্রেপ্তার করার অনুরোধও জানিয়েছিলো। কিন্তু দক্ষিণ কোরিয়ার আদালত বলছেন, লিকে পর্যাপ্ত প্রমাণ হাজির করা না হলে তাকে গ্রেপ্তার করাও হবে না।

samsung chief lee jae yong is not being arrested

আদালতের এই রায়ের ফলে আপাতত গ্রেপ্তার থেকে বাঁচলেন স্যামসাং প্রধান। এর আগে লিকে গ্রেপ্তার করা হবে বলে খবর ছড়িয়ে পড়ে।

এর আগে স্যামসাংয়ের পক্ষ থেকে লির যে কোনো রকম অপ্রত্যাশিত কাজকে অস্বীকার করা হয়। স্যামসাংয়ের দাবি এবং আদালতের রায়; এই দুই মিলে আপাতত গ্রেপ্তারের হাত থেকে বাঁচালো ইয়ংকে।

কোরিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্ট পার্ক গিউন হাইয়ের অভিসংশনের নেপথ্যে কেলেঙ্কারির সঙ্গে লি জা ইয়ংকের জড়িত থাকার অভিযোগ আনা হয়। যদি লি গ্রেপ্তার হতেন, তবে ওই ঘটনায় গ্রেপ্তার হওয়া প্রথম প্রধান নির্বাহী হয়ে যেতেন তিনি।

লি জা ইয়ং স্যমাসাংয়ের প্রতিষ্ঠাতা লিং বিয়ং চুলের দৌহিত্র এবং স্যামসাংয়ের বর্তমান চেয়ারম্যান কুন হির ছেলে। ৪৮ বছর বয়সী লি তার ক্যারিয়ারের পুরোটা সময় স্যামসাংয়ের সঙ্গেই আছেন।