advertisement
আপনি পড়ছেন

যদি কোন ব্যক্তি না জেনে বা ভুল করে কোন ধর্মকে অসম্মান করেন তবে তা অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে না। ভারতের সুপ্রিম কোর্ট বলছে, এক্ষেত্রে মামলা চালালে তা আইনের অপব্যবহার হবে। এছাড়াও দেশটিতে প্রচলিত ২৯৫ ধারার অপপ্রয়োগের বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে আদালত।

indian supreme court

সুপ্রিম কোর্টের সংশ্লিষ্ট বেঞ্চ জানান, অপ্রত্যাশিত কোন কারণে বা অসৎ উদ্দেশ্য ছাড়া কেউ যদি ধর্ম অবমাননা করে বা ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানে তবে তা ২৯৫ ধারার অন্তর্গত অপরাধ হবে না। এই ধারা অনুযায়ী ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেওয়ার অভিযোগ প্রমাণ হলে অপরাধীর কমপক্ষে তিন বছরের দণ্ড হতে পারে।

ক্রিকেটার মহেন্দ্র সিং ধোনি ২০১৩ সালে তার বিরুদ্ধে আনা ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের অভিযোগ চ্যালেঞ্জ করে মামলা করতে চেয়েছিলেন। একজন নামকরা ব্যবসায়ীর ফেসবুকের কভার ফটোতে তাকে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের ভগবান বিষ্ণুর রূপে দেখানো হয়েছিল। দেশটির সুপ্রিম কোর্টের এই রায় জনপ্রিয় ব্যক্তিদের এ ধরণের অপ্রত্যাশিত আইনি ঝামেলা থেকে রক্ষা করবে।

ভারতীয় আইনের ২৯৫ ধারায় বলা হয়েছে, উদ্দেশ্যমূলকভাবে বা আক্রোশবশত ধর্মীয় বিশ্বাসে আঘাত হানা বা কোনো গোষ্ঠীর ধর্ম বা ধর্মীয় বিশ্বাসকে অপমান করা অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে। ১৯৫৭ সালে সুপ্রিম কোর্টের এক রায়ে বলা হয়, অসৎ উদ্দেশ্য ছাড়া ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের ঘটনা অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে না। কিন্তু ক্রমাগত এই ধারার অপব্যবহার চলতে থাকায় আদালত আইনকে তার সঠিক অবস্থানে তুলে ধরতে আবার এই আইনটির অবস্থান চিহ্নিত করে দিল।