advertisement
আপনি পড়ছেন

মিয়ানমারের মুসলিম অধ্যুষিত রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা জাতিগোষ্ঠীর ওপর চলছে দেশটির সেনাবাহিনী ও উগ্রপন্থী বৌদ্ধদের অত্যাচার, নিপীড়ন আর হত্যাযজ্ঞ। জাতিসংঘের হিসাবে ইতোমধ্যে সেখানে মারা গেছে এক হাজারের বেশি রোহিঙ্গা। তবে বাস্তবে সেই সংখ্যাটা আরো বেশি। রোহিঙ্গাদের ওপর চলমান সহিংসতা, দমন-পীড়ন ও হত্যাযজ্ঞ বন্ধে মিয়ানমারের গণতান্ত্রিক নেত্রী ও নোবেল বিজয়ী অং সান সুচির প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তিব্বতের প্রখ্যাত বৌদ্ধ ধর্মীয় নেতা দালাই লামা।

Dalai Lama tibbat

দ্য ইকোনোমিক টাইমস বলছে, বুদ্ধের শিক্ষা, জীবে দয়া আর মানবতার বিষয়টি বিবেচনা করে নির্যাতিত রোহিঙ্গা মুসলিমদের পাশে দাঁড়াতে সু চিসহ সকল বৌদ্ধদের প্রতিও আহ্বান জানিয়েছেন দালাই লামা। সেই সঙ্গে রাখাইন রাজ্যে সহিংসতা ও রোহিঙ্গাদের আবাসন সমস্যার স্থায়ী সমাধানেরও আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

রোহিঙ্গা ইস্যুতে আস্তে আস্তে ঘুম ভাঙছে বিশ্ব মিডিয়াসহ বিশ্ব মোড়লদের। দক্ষিণ আফ্রিকার বর্ণবাদবিরোধী নেতা ডেসমন্ড টুটু বলেছেন, 'রোহিঙ্গা নির্যাতন-নিপীড়ন বন্ধ করতে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ না নিলে চড়া মূল্য দিতে হবে অং সাং সু চিকে। বার্ধক্য আমাকে অন্তিম সময়ে নিয়ে এসেছে। আমি জরাগ্রস্ত, অবসর নিয়েছি সবকিছু থেকে। ঠিক করেছিলাম সার্বজনীন ইস্যুতে প্রকাশ্যে কিছু বলবো না। কিন্তু তোমার দেশের সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর নির্যাতন-অত্যাচার আর গভীর সংকটের কারণে আমি নিরবতা ভাঙছি।'

রোহিঙ্গাদের আশ্রয় ও রোহিঙ্গা সঙ্কটে নিরসনে বাংলাদেশ সরকারের আন্তরিক প্রচেষ্টার প্রশংসা করেন মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক। তিনি আশ্বস্ত করেছেন সামনের ১২ সেপ্টেম্বর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সফরের সময় রোহিঙ্গা সঙ্কট নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে অালোচনা করবেন।

প্রাণ নিয়ে কোনমতে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের সঙ্গে কথা বলতে বাংলাদেশে অবস্থান করছেন তুরস্কের ফার্স্ট লেডি এমিন এরদোয়ান। রোহিঙ্গাদের দুঃখে কেঁদেছেনও তিনি। রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করতে গিয়ে এমিন এরদোয়ান বলেছেন, 'মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের উপর ঘটে যাওয়া পাশবিকতার কথা আমরা জেনেছি। তাদের ওপর চালানো নিপীড়ন, নির্যাতন বড়ই অমানবিক, বর্বর। রোহিঙ্গাদের পাশবিকতার শিকার হওয়ার গল্প বিশ্ব দরবারে তুলে ধরা হবে। জাতিসংঘের আগামী অধিবেশনে তুরস্ক বিষয়টি তুলে ধরবে।'

রাখাইনে চলমান নির্যাতন-সহিংসতার প্রতিবাদে বিক্ষোভ হয়েছে বাংলাদেশ, ইরান, পাকিস্তান, ভারত, ইন্দোনেশিয়াসহ বিশ্বের অনেক দেশে। ২০১৬ সালের অক্টোবর মাস থেকে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর চলছে দেশটির সেনাবাহিনীর নৃশংসতা। সেনা অভিযানের নাম করে সেখানে চলছে খুন, ধর্ষণ, হত্যা আর রোহিঙ্গাদের ঘরবাড়ি জ্বালিয়ে দিয়ে তাদের করা হচ্ছে বিতাড়িত। গত এক সপ্তাহে রাখাইন থেকে প্রায় তিন লাখ রোহিঙ্গা শরণার্থী বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।