advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 32 মিনিট আগে

শুক্রবার জুমার নামাজের সময় নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদে বর্বরতম হামলা চালিয়েছে উগ্রপন্থী সন্ত্রাসীরা। এতে অন্তত ৪৯ জন নিহত এবং ৪৮ জন গুরুতর আহত হয়েছেন। এর মধ্যে অস্ট্রেলীয় বংশোদ্ভূত ব্রেনটন টারান্ট ভয়াবহ হামলা চালিয়েছে আল নুর মসজিদে। তার হামলায় অন্তত ৪১ জন নিহত হয়েছে।

newzeland mosque attacker

নিউজিল্যান্ডের পুলিশ বলছে, আগে থেকে এ ধরনের নৃশংসতার খবর তাদের কাছে ছিল না এবং ব্রেনটনসহ হামলার ঘটনায় আটক চারজনের নাম পুলিশের ওয়াচলিস্টে ছিল না।

তবে ব্রিটিশ গণমাধ্যম ডেইলি মেইল বলছে ভিন্ন কথা। তারা বলছে, একদিন আগেই ব্রেনটন মুসলিমদের হত্যার প্রতিজ্ঞা করে। এমনকি হামলার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্রেনটনের অনুসারীরা তার (উদ্যোগের) ভূয়ষী প্রশংসা করেছে।

সংবাদ মাধ্যমটি বলছে, কুখ্যাত ডানপন্থী (উগ্রপন্থী) ব্লগিং ওয়েবসাইট ৮চ্যান-এ বৃহস্পতিবার টারান্ট (মনে করা হচ্ছে) অন্য পরিচয়ে লেখে, ‘আমি ইনভেডারদের (আক্রমণকারী) বিরুদ্ধে হামলা চালাব এবং ফেসবুকের মাধ্যমে সেই হামলা সরাসরি প্রচার করব।’

সেইসঙ্গে একটি লিংকও শেয়ার করে ব্রেনটন যাতে তার অনুসারীরা বিভিন্ন এলাকা থেকে হামলার ভয়বহতা প্রত্যক্ষ করতে পারে এবং বলে, ‘এই সময়ে তোমরা এই লিংকে ঢুকলে দেখবে আমি লাইভে (সরাসরি প্রচার) থাকব।’

স্বর্গের ভাইকিং ভার্সনের প্রতি ইঙ্গিত করে টারান্ট বলে, ‘হামলায় যদি আমি বেঁচে না থাকি, তাহলে বিদায়, স্রষ্টার অনুগ্রহে ভালহাল্লায় (স্বর্গ) তোমাদের সঙ্গে দেখা হবে।’

ডেইলি মেইল বলছে, হামলা আগে ব্রেনটন তার অস্ত্রশস্ত্র ও গুলি ছবিও সামাজিক মাধ্যমে পোস্ট করে। কিন্তু পুলিশের সন্ত্রাসী তালিকায় নাম না থাকায় তাকে আটক করা হয়নি।

ব্রিটিশ গণমাধ্যমটি বলছে, টারান্ট সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তার পোস্ট করা ৭৩ পৃষ্ঠার ইশতেহার পড়তেও অনুসারীদের আহ্বান জানায় যাতে তারা তাকে মনে রাখে।

খবরে বলা হয়েছে, পোস্টটি যদিও বেনামে লেখা ছিল, কিন্তু টারান্টের অনুসারীদের মাধ্যমে সেটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ে।

এক পর্যায়ে শুক্রবার যখন হামলা শুরু হয় তখন টারান্টের ফ্যানরা তাকে নানাভাবে উৎসাহ দিতে থাকে, যেমন- ‘হেইল ব্রেনটন টারান্ট’।

এর পর হামলার খবর যখন সোশ্যল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে এবং টেলিভিশনগুলোতে প্রচার হতে থাকে তখন তার অনুসারীরা হামলা সম্পর্কে নানা ঘটনা বলতে থাকে এবং হত্যাযজ্ঞ চালানোয় টারান্টের প্রশংসা করতে থাকে।

sheikh mujib 2020