advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 32 মিনিট আগে

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, ‘নয়া পাকিস্তানে সন্ত্রাসের কোনো স্থান’ নেই। তাছাড়া পাকিস্তানের সঙ্গে জইশ-ই-মোহাম্মাদের কোনো সম্পর্ক না থাকার বিষয়টিও পুনর্ব্যক্ত করেছেন তিনি। গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ভারতের কাশ্মিরের পুলওয়ামায় আত্মঘাতী হামলার জন্য এই সংগঠনটি দায়ী করছে ভারত।

imran khan pakistan pm 1

ব্রিটিশ গণমাধ্যম ফিন্যান্সিয়াল টাইমসকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে পাক প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা ইতোমধ্যে তাদের (জইশ) ওপর সাঁড়াশি অভিযান শুরু করেছি, আমরা তাদের সব কিছু তছনছ করছি। এই মুহূর্তে পাকিস্তানে যা ঘটছে তা আগে কখনও ঘটেনি।’

পুলওয়ামা হামলার পর নয়াদিল্লি পাকিস্তানের বালাকোটে যে হামলা চালায়, সেজন্য ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে এগ্রেসর (হামলাকারী/আক্রমণকারী) অভিহিত করেন ইমরান খান। পুলওয়ামা হামলায় ভারতের ৪৪ সেনা নিহত হয়।

পাক প্রধানমন্ত্রী বলেন, তার আশঙ্কা হচ্ছে, নির্বাচনের আগে ভারত ‘যুদ্ধ জ্বরে’ আক্রান্ত হয়েছে।

খান বলেন, ‘আমি এখনও শঙ্কিত যে, নির্বাচনের (ভারতের) আগে একটা কিছু ঘটতে পারে।’

তিনি বলেন, ‘পুলওয়ামা হামলার পর আমি বুঝতে পেরেছিলাম, ভারত সরকার এ ধরনের ‘যুদ্ধ রোগ’ সৃষ্টি করবে। ভারতের সাধারণ মানুষের এটা বোঝা উচিত যে, এটা শুধু নির্বাচনে জয়লাভের জন্য। উপমহাদেশের প্রকৃত ইস্যুগুলোর সঙ্গে এর কোনো সম্পর্ক নেই।’

সাক্ষাৎকারে ইমরান খান মোদির ‘মুসলিম বিদ্বেষী’ সরকার এবং ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরে হামলা চালাতে নানা কঠোর নীতিমালার সমালোচনা করেন।

‘জইশ-ই-মোহাম্মাদ ভারতে রয়েছে, ১৯ বছর বয়সী যে বালকটি বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে সে ভারতীয় কাশ্মিরের বাসিন্দা,’ বলেন পাক প্রধানমন্ত্রী, ‘তার বাবা-মা বলেছেন, ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনীর কারণে সে উগ্রপন্থী হয়েছে। সুতরাং সে ভারতীয় বালক, ভারতে হামলা, ভারতীয় গাড়ি, ভারতীয় বিস্ফোরক। তাহলে কেন পাকিস্তানকে দায়ী করা হয়।’

পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, ইসলামাবাদ কখনও তার মাটিকে সন্ত্রাসীদের নিরাপদ ঘাঁটি হতে দেবে না।

এ সময় চীনের প্রশংসাও করেন পাক প্রধানমন্ত্রী। চীন পাকিস্তানের সঙ্গে ‘ঋণ-ফাঁদের কূটনৈতিক’ চাল চালছে বলে যে সমালোচনা রয়েছে তা প্রত্যাখ্যান করেন ইমরান খান।

sheikh mujib 2020