advertisement
আপনি দেখছেন

আমেরিকার আধিপত্যবাদ বা অর্থনৈতিক সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায় মুসলিম বিশ্বকে বার্তা দিয়েছেন ইরানের প্রেসিডেন্ট ড. হাসান রুহানি।

dr. hasan ruhani iran

তিনি বলেছেন, মুসলিম বিশ্বকে অবশ্যই মার্কিন অর্থনৈতিক সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করার পথ বের করতে হবে। এ জন্য মুসলিম দেশগুলোর আন্তঃব্যাংকিং সম্পর্ক বৃদ্ধি এবং লেনদেনের ক্ষেত্রে ডলারের বিকল্প খুঁজতে হবে।

মালয়েশিয়ার রাজধানী কুয়ালালামপুরে সামিট-২০১৯ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ইরানি প্রেসিডেন্ট বৃহস্পতিবা এসব কথা বলেন। এ সময় তিনি অর্থনীতি, নিরাপত্তা, সাংস্কৃতিক এবং আত্মপরিচয়ের ক্ষেত্রে মুসলিম বিশ্ব যেসব চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করছে সেগুলো তুলে ধরেন। এসব ইস্যু মুসলমানদের অভ্যন্তরীণ এবং আন্তর্জাতিক অঙ্গনের উন্নতিকে বাধাগ্রস্ত করছে বলেও জানান তিনি।

ইরানি গণমাধ্যম পার্সটুডে বলছে, প্রেসিডেন্ট রুহানি মার্কিন নিষেধাজ্ঞা এবং অর্থনৈতিক সন্ত্রাসবাদের নিন্দা জানিয়ে বলেন, এগুলোর মাধ্যমেই মার্কিন সরকার তাদের সাম্রাজ্যবাদী আধিপত্য বিস্তার করছে। এসব অস্ত্র ব্যবহার করেই আমেরিকা অন্যের ওপর তাদের অবৈধ দাবি চাপিয়ে দিচ্ছে। মার্কিন ডলার এবং আমেরিকার অর্থনৈতিক ব্যবস্থার এই আধিপত্যবাদ থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য মুসলিম বিশ্বকে অবশ্যই উপায় খুঁজে বের করতে হবে।

ড. রুহানি বলেন, উত্তর আফ্রিকা থেকে পূর্ব এশিয়া পর্যন্ত মুসলিম দেশগুলো মারাত্মক নিরাপত্তা চ্যালেঞ্জের মুখে রয়েছে। তারা ইহুদিবাদী ইসরায়েল ও আমেরিকার সৃষ্ট উগ্রবাদ ও সন্ত্রাসবাদের শিকার। সিরিয়া, ইয়েমেন, ইরাক লেবানন, লিবিয়া ও আফগানিস্তানে যে যুদ্ধ হয়েছে তা অভ্যন্তরীণ চরমপন্থা এবং বৈদেশিক হস্তক্ষেপের মিশ্রিত ফল।

মুসলিম উম্মাহর সামনে যে বিশাল সম্ভাবনা রয়েছে তা যদি ঠিকমতো কাজে লাগানো যায় তাহলে মুসলিম বিশ্বের উন্নতি অবশ্যই আসবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

খবরে বলা হয়েছে, প্রেসিডেন্ট রুহানি তার ভাষণে গত চার দশক ধরে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা বিশেষ করে আমেরিকার পক্ষ থেকে যেসব সমস্যা তৈরি করা হয়েছে তা মোকাবেলার ক্ষেত্রে তেহরানের সফল অভিজ্ঞতাগুলো তুলে ধরে বলেন, এসব ইস্যু নিয়ে কাজ করার ক্ষেত্রে মুসলিম বিশ্ব ইরানকে অনুসরণ করতে পারে। ইরান এখন সারা বিশ্বের কাছে প্রতিরোধ এবং লড়াইয়ের ক্ষেত্রে রোল মডেলে পরিণত হয়েছে।