advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 57 মিনিট আগে

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরুদ্ধে গোটা ভারতে চলছে উত্তেজনা। ইতোমধ্যে ২৩ জনের বেশি নিহত হয়েছে। এর মধ্যে ১৬ জনই উত্তরপ্রদেশের। এ বিষয়ে রাজ্যটিতে সংহতি জানাতে গিয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতাসীন দল তৃণমূলের একটি প্রতিনিধি দল। কিন্তু লাখনৌ বিমানবন্দরেই তাদের আটকে দেওয়া হয়।

trinumool delegation

স্থানীয় গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, এর আগে রোববার সকালেই উত্তরপ্রদেশ পুলিশের ডিজি ওইপি সিং বলেছিলেন, তৃণমূলের প্রতিনিধিদলকে ঢুকতে দেওয়া হবে না। তাতে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির আরও অবনতি হতে পারে। হলোও তাই। বেলা সাড়ে ৩টা নাগাদ লাখনৌ বিমানবন্দরে নামলে তৃণমূলের প্রতিনিধিদলকে আটকে দেয় পুলিশ। বিমানবন্দরের বাইরেই বেরুতে দেওয়া হয়নি প্রতিনিধিদলকে।

প্রসঙ্গত, এর আগে এনআরসি নিয়ে আসামে বিক্ষোভ শুরু হওয়ার পর তৃণমূলের প্রতিনিধি দলকে শিলচরে পাঠিয়েছিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। তখনও আসাম পুলিশ তৃণমূলের প্রতিনিধি দলকে বিমানবন্দরের বাইরে বেরোতে দেননি। তা নিয়ে কম ধুন্ধুমার হয়নি।

এদিন তেমন কিছু না হলেও, উত্তরপ্রদেশ পুলিশের বিরুদ্ধে দুর্ব্যবহারের অভিযোগ তুলেছেন তৃণমূলের প্রাক্তন ও বর্তমান সংসদ সদস্যরা।

প্রতিনিধি দলের সদস্য দীনেশ ত্রিবেদী বলেন, “আমরা নামতেই ওরা ধাক্কাধাক্কি শুরু করে দেয়। তার পর বাসে তুলে আমাদের বিমানবন্দরের মধ্যেই একটি জায়গায় এনে বসানো হয়েছে।”

ব্যারাকপুরের প্রাক্তন সাংসদ তথা প্রাক্তন রেলমন্ত্রী বলেন, “ব্রিটিশ পুলিশ এই ধরনের আচরণ করতো। স্বাধীন ভারতের কোনও রাজ্যে পুলিশ এমন আচরণ করতে পারে তা ধারণাই ছিল ছিল না।”

sheikh mujib 2020