advertisement
আপনি দেখছেন

ভারতের রাজধানী দিল্লিতে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) নিয়ে বিরোধী ও সমর্থকদের সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২৩ জনে দাঁড়িয়েছে। আহত হয়েছেন আরো দুই শতাধিক। গত সোমবার থেকে শুরু হওয়া এই সহিংসতায় মৃত্যুর মিছিল যেনো কিছুতেই থামছেই না। তাই স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠছে দিল্লি পুলিশের ভূমিকা নিয়ে।

soniya amit

এরই মধ্যে সহিংসতার দায় নিয়ে দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের পদত্যাগের দাবি জানিয়েছেন কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী। বুধবার দিল্লিতে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবি জানান।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রতি বিভিন্ন প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়ে সোনিয়া গান্ধী বলেন, দিল্লির এমন সহিংস পরিস্থিতিতে অমিত শাহ কোথায়? গত এক সপ্তাহ ধরে তিনি কী করছেন? কোথায় ছিলেন? দিল্লির পরিস্থিতি যখন নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাচ্ছিলো, তখন তিনি আধা-সামরিক বাহিনী ডাকলেন না কেন?

সহিংসতা এত বড় আকারে ছড়িয়ে পড়ার জন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ গোটা কেন্দ্রীয় সরকারকে দায়ী করে তিনি বলেন, এর দায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়কেই নিতে হবে। পাশাপাশি মন্ত্রলালয়ের দায়িত্বে থাকা অমিত শাহের পদত্যাগ দাবি করছে কংগ্রেস।

এদিকে, সিএএ বিরোধী এ বিক্ষোভে উত্তর-পূর্ব দিল্লির মুসলিম অধ্যুষিত এলাকাগুলোতেই বেশি সহিংসতা ছড়িয়েছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে বিবিসি। তাদের প্রতিবেদনে বলা হয়, সহিংসতার বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই মুসলিমদের ঘরবাড়ি ও দোকানপাটে হামলা চালানো হয়েছে। সংঘর্ষের সময় কারো কারো হাতে বন্দুকও দেখা গেছে।

sheikh mujib 2020