advertisement
আপনি দেখছেন

দেশে দেশে যখন লকডাউন তুলে নেওয়া কিংবা শিথিল করার উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে, তখনই প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস সংক্রমণ ছড়িয়ে দিচ্ছে দ্বিগুণ গতিতে। বিশ্বব্যাপী এখন একদিনে কমবেশি দুই লাখ মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন, সপ্তাখানেক আগেও যেটা ছিল ১ লাখের ঘরে। অবশেষে ৭ মাসেরও কম সময়ের মধ্যে ১ কোটি মানুষের শরীরে প্রবেশ করল ভাইরাসটি এবং আক্রান্ত হয়ে না ফেরার দেশে চলে গেলেন ৫ লাখ মানুষ।

update 9april

আন্তর্জাতিক জরিপ পর্যালোচনাকারী সংস্থা ওয়ার্ল্ডওমিটারের সবশেষ তথ্য মতে, বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১ কোটি ৮১ হাজার ৫৮২ জন মানুষ। এখন পর্যন্ত এই ভাইরাস প্রাণ কেড়ে নিয়েছে ৫ লাখ ১ হাজার ৩০০ জনের। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৫৪ লাখ ৫৮ হাজার ৩৬৭ জন। সংক্রমিত হয়ে গুরুতর অবস্থায় মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন ৫৭ হাজার ৭৪৮ জন।

যুক্তরাষ্ট্রে সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হয়েছে গত ৩ দিন ধরে। এই সময় দেশটিতে প্রত্যেক ২৪ ঘণ্টায় ৪০ হাজারেরও ওপরে মানুষকে নতুন করে কোভিড-১৯ রোগী হিসেবে শনাক্ত করা হচ্ছে। একই রকম অবস্থা ব্রাজিলেও। সেখানে কমবেশি ৪০ হাজার সংক্রমণের পাশাপাশি মৃত্যুবরণ করছেন সবচেয়ে বেশি মানুষ।

sample test

সংক্রমণের তালিকায় বর্তমানে বাংলাদেশের অবস্থান ১৭ নম্বরে। আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৩৩ হাজার ৯৭৮ জন। প্রতিদিনই প্রায় ৪ হাজার ছুঁই ছুঁই আক্রান্তের পাশাপাশি মৃত্যুবরণ করছেন কমবেশি ৪০ জন। তবে জনসংখ্যার তুলনায় আমাদের দেশে নমুনা পরীক্ষা হচ্ছে খুবই কম। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এ কারণে দেশে সংক্রমণের আসল চিত্রটা ধরা পড়ছে না।

sheikh mujib 2020