advertisement
আপনি দেখছেন

মানবপাচার ও অবৈধ মুদ্রা পাচারের অভিযোগে বর্তমানে কুয়েতের কারাগারে বন্দি লক্ষ্মীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য কাজী শহিদ ইসলাম পাপুল নিজেকে নির্দোষ দাবি করেছেন। একই সঙ্গে কুয়েতের সরকারি কর্মকর্তাদের দুর্নীতিগ্রস্ত বলে অভিযোগ তুলেছেন তিনি।

mp papul newলক্ষ্মীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য কাজী শহিদ ইসলাম পাপুল

আজ বৃহস্পতিবার আরব টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়, অবৈধ ভিসা বাণিজ্য, অর্থ পাচার ও ঘুষ লেনদেনসহ মানব পাচারের অভিযোগে পাবলিক প্রসিকিউশনের তদন্তকারীদের পাপুল বলেছেন, 'আমি নিষ্পাপ। কিন্তু কুয়েতের সরকারি কর্মকর্তারা নিষ্পাপ নন। তারা দুর্নীতিগ্রস্ত।'

এ সময় ঘুষ লেনদেনের অভিযোগ অস্বীকার করে তিনি বলেন, তার ওই লেনদেন ন্যায়সঙ্গত ছিল। কুয়েতে তার অধীনে ৯ হাজার কর্মী আছে। কেউই এখন পর্যন্ত কাজের সাফল্য নিয়ে প্রশ্ন করেননি। তবে কুয়েতের কিছু কর্মকর্তা তার কাজ বন্ধ করে দিয়েছেন। এক্ষেত্রে ওইসব কর্মকর্তাদের টাকা দিয়েই রাজি করানো যায়। তাই এমনটা করা।

সূত্রের বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, নিজের বিরুদ্ধে উঠা সকল অভিযোগ অস্বীকার করে আত্মপক্ষ সমর্থন করেছেন কাজী শহিদ ইসলাম পাপুল। পাশাপাশি তার কোম্পানিতে যে ধরনের সুযোগ-সুবিধা রয়েছে, তা অন্য কোম্পানিতে নেই বলেও দাবি করেন।

কোম্পানির মানের প্রমাণ হিসেবে তদন্তকারী কর্মকর্তাদের সামনে সরকারি যে সব এজেন্সিগুলোর সঙ্গে তার কোম্পানি চুক্তিবদ্ধ হয়েছে, সে সবের কথা তুলে ধরেন বাংলাদেশি এই সাংসদ।

গত ৭ জুন এমপি পাপুলকে কুয়েতে গ্রেপ্তার করা হয়। কুয়েতের অপরাধ তদন্ত বিভাগের হাতে প্রয়োজনীয় প্রমাণ থাকার পরও প্রথমে তিনি দোষ স্বীকার করেননি। পরবর্তীতে তার সামনে ভুক্তভোগীদের ৭ জনকে হাজির করা হয়। তারা যখন ঘটনা বর্ণনা করছিলেন তখন তিনি চুপ ছিলেন।

sheikh mujib 2020