advertisement
আপনি দেখছেন

লেবাননের রাজধানী বৈরুতে ভয়াবহ বিস্ফোরণে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়ালো সৌদি আরব। তাদের দেওয়া সাহায্য সরঞ্জামবাহী প্রথম বিমানটি বৈরুতে পৌঁছেছে। সামগ্রীগুলোর মধ্যে ওষুধ, আশ্রয় কিট এবং খাদ্যদ্রব্য অন্যতম।

saudi arabiya aid to beirutসৌদি সাহায্য পৌঁছালো বৈরুতে

আরব নিউজের বরাতে জানা যায়, সৌদি বাদশাহ সালমানের তত্ত্বাবধানে কিং সালমান হিউমেনিটেরিয়ান এইড এন্ড রিলিফ সেন্টারের (কেএসরিলিফ) তরফ থেকে এসব সামগ্রী বৈরুতে পৌঁছেছে।

মঙ্গলবার স্থানীয় সময় বিকেলে বৈরুতে ভয়াবহ এক বিস্ফোরণে ১৪৯ জনের মৃত্যু হয়। আহত হয়েছেন ৫ হাজারেরও অধিক মানুষ। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে লাখ লাখ বাড়িঘর। অগণিত মানুষ খোলা আকাশের নিচে বাস করতে বাধ্য হচ্ছেন।

beirut explosion 02বিস্ফোরণে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার দৃশ্য

এই ঘটনার পর আন্তর্জাতিক সাহায্যের আহ্বান জানিয়েছে লেবানন সরকার। অর্থনৈতিক বিপর্যয়ের কারণে দেশটি আগে থেকেই কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে আছে। বিস্ফোরণের ঘটনা পরিস্থিতি আরো দুর্বিষহ করে তুলেছে। আন্তর্জাতিক সাহায্য ছাড়া বর্তমান পরিস্থিতি মোকাবেলা করা সম্ভব নয় বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

জানা যায়, শুক্রবার সকালে সৌদি আরব থেকে পরপর দুটি কার্গো বিমান বৈরুত বিমানবন্দরে অবতরণ করেছে। দুই বিমানে ১২০ টন সরঞ্জাম ছিল। কেএসরিলিফের তত্ত্বাবধানে এসব পণ্য ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে বিতরণ করা হবে। কেএসরিলিফের কর্মকর্তা ডক্টর সামের আল-জেতাইলি বলেন, আগামী তিন থেকে চারদিন কয়েকদফায় বৈরুতে সাহায্য সরঞ্জাম পাঠানো হবে।

তিনি আরো বলেন, আমাদের ত্রাণ কার্যক্রম তিনটি বিভাগে কাজ করবে। প্রথম বিভাগ মেডিকেল দিকগুলো নিয়ে কাজ করবে। যারা বিস্ফোরণের কারণে আহত হয়েছেন তাদের মেডিকেল সরঞ্জাম দেয়া হবে। দ্বিতীয় বিভাগে আমরা খাদ্যদ্রব্য বিতরণ করবো। যারা গৃহহীন অবস্থায় বসবাস করছে তাদের সর্বপ্রথম গুরুত্ব দেয়া হবে। তৃতীয় ধাপে আমরা খসড়া তালিকা প্রস্তুত করার চেষ্টা করবো।

sheikh mujib 2020