advertisement
আপনি দেখছেন

সিরিয়া সীমান্তের কাছ থেকে কুর্দি সশস্ত্র গ্রুপকে প্রত্যাহার করার আহ্বান জানিয়েছে তুরস্ক। নয়তো সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে নতুন করে সামরিক হামলা শুরুর হুমকি দিয়েছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোয়ান। বুধবার পার্লামেন্টে সাংসদদের উদ্দেশে বক্তব্য দেয়ার সময় তিনি এ কথা বলেন।

erdoan newতুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোয়ান

রাশিয়া ওই অঞ্চলে টেকসই শান্তি স্থাপন করতে চাইছে না অভিযোগ করে তুর্কি প্রেসিডেন্ট বলেন, সীমান্ত এলাকায় কুর্দি যোদ্ধাদের বিরুদ্ধে সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে সামরিক হস্তক্ষেপের বৈধতা আছে তুরস্কের।

আল জাজিরার খবরে বলা হয়, চলতি সপ্তাহের শুরুর দিকে সিরিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় ইদলিব প্রদেশে তুর্কি সমর্থিত সিরিয়ান বিদ্রোহীদের টার্গেট করে রাশিয়ার বিমান হামলায় কয়েক ডজন যোদ্ধা নিহত হন। তারও আগে সীমান্তবর্তী প্রদেশ হাতাইয়ের একটি শহরে পুলিশ ধাওয়া করলে সন্দেহভাজন এক কুর্দি যোদ্ধা নিজেকে উড়িয়ে দেন এবং দ্বিতীয় একজনকে হত্যা করে পুলিশ।

military posts in syria idlib will stand after ceasefireইদলিব প্রদেশে তুর্কি সামরিক বাহিনী

এ প্রসঙ্গে এরদোয়ান বলেন, অঞ্চলটিতে থাকা সকল সন্ত্রাসীকে প্রত্যাহার করে নিতে হবে। যদি তা না হয় তাহলে আমি আবারও প্রতিশ্রুতি দিয়ে বলছি, যেকোনো সময় সেখানে হস্তক্ষেপ করার বৈধ অধিকার তুরস্কের আছে। আর আমরা সেখানে হামলা চালানোর প্রয়োজনীয়তা অনুধাবন করতে পারছি।

সিরিয়ান ন্যাশনাল আর্মি ফোর্সের প্রশিক্ষণ সেন্টারকে লক্ষ্য করে রাশিয়া হামলা চালিয়েছে অভিযোগ করে তিনি বলেন, এর মধ্য দিয়ে অঞ্চলটিতে টেকসই শান্তি ও স্বস্তি প্রয়োজন নেই বলে ইঙ্গিত দিতে চাইছে তারা।

প্রসঙ্গত, গত মার্চ মাসে সিরিয়ার ইদলিব প্রদেশের জাবালে দেইলা এলাকায় শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে তুরস্ক-রাশিয়ার মধ্যস্থতায় একটি চুক্তি হয়েছিল। সেখানে তুরস্কের মদতপুষ্ট সশস্ত্র গ্রুপের সবচেয়ে বড় ক্যাম্প অবস্থিত। আর ওই স্থান টার্গেট করেই সাম্প্রতিক বিমান হামলায় কমপক্ষে ৩৫ জন যোদ্ধা নিহত হয়েছেন। এটিই এখন পর্যন্ত অঞ্চলটিতে সবচেয়ে ভয়াবহ হামলা।

sheikh mujib 2020