advertisement
আপনি দেখছেন

আজারবাইজানের সেনাবাহিনী নাগার্নো-কারাবাখ অঞ্চলের আরো একটি এলাকার নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে। রাশিয়ার মধ্যস্থতায় সম্প্রতি আজারবাইজান ও আর্মেনিয়া পূর্ণাঙ্গ যুদ্ধবিরতির জন্য যে চুক্তি সই করেছে, তার আওতায় কালবাজার নামে গুরুত্বপূর্ণ ওই এলাকাটির নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে আজারবাইজান।

azerbaijan army take control kalbajarআজারি সেনাদের পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে আরেকটি এলাকা

দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে আজ বুধবার এক বিবৃতি দিয়ে এ তথ্য জানানো হয়েছে বলে খবর দিয়েছে পার্সটুডে।

এতে বলা হয়, আজারি সেনারা যাতে কালবাজার এলাকায় নির্বিঘ্নে চলাচল করতে পারে, সেজন্য ওই এলাকায় আর্মেনীয় বিচ্ছিন্নতাবাদীদের পেতে রাখা মাইন ও বোমা অপসারণ করা হয়েছে। সেইসঙ্গে সম্পন্ন হয়েছে ইঞ্জিনিয়ারিং কার্যক্রমও।

azerbaijan army take control kalbajar innerআজারি সেনাদের পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে আরেকটি এলাকা

আজারি প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিয়েভের উপদেষ্টা হিকমত হাজিয়েভ জানিয়েছেন, আর্মেনিয়া সরকার কালবাজার শহরটি হস্তান্তরের জন্য ১০ দিন বাড়তি সময় নিয়েছিল, সেই সময় শেষ হওয়ার পর আজ বুধবার শহরটি হস্তান্তর করা হয়েছে।

নাগর্নো-কারাবাখ আজারবাইজানের ভূখণ্ড হলেও ১৯৯০ এর দশকে সেটি আার্মেনিয়া দখল করে নেয়। এর পর অঞ্চলটির নিয়ন্ত্রণ নিয়ে দুই দেশের মধ্যে রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে ৩০ হাজারের মতো মানুষের মৃত্যু হয়। এর পর থেকে যুদ্ধবিরতিতে ছিল দুই দেশ।

azerbaijan army take control kalbajar innerrকালবাজার এলাকা ছাড়ার আগে বাড়ি-ঘরে আগুন ধরিয়ে দেয় আর্মেনীয়রা

চলতি বছরের ২৭ সেপ্টেম্বর আর্মেনিয়ার এক হামলাকে কেন্দ্র করে যুদ্ধে জড়িয়ে পড়ে প্রতিবেশী দুই দেশ আজারবাইজান ও আর্মেনিয়া। প্রায় ৪৪ দিন ধরে চলা এই যুদ্ধে ইয়েরেভানের কাছ থেকে ৩০০টির বেশি বসতি ও এলাকা দখলমুক্ত করে বাকু। পরে গত ১০ নভেম্বর রাশিয়ার মধ্যস্থতায় শান্তি চুক্তি করে দুই দেশ। পাশাপাশি নাগার্নো-কারাবাখ অঞ্চলে স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে আজারবাইজানের ভূখণ্ডে যৌথ পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র প্রতিষ্ঠার সমঝোতা স্বাক্ষর করে তুরস্ক ও রাশিয়া।

sheikh mujib 2020