advertisement
আপনি দেখছেন

সম্প্রতি চীনের সেনাবাহিনীতে যুক্ত হয়েছে পরমাণু শক্তিচালিত অত্যাধুনিক সাবমেরিন। যেখানে ইতোমধ্যেই স্থাপন করা হয়েছে এমন এক ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র, যা দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের মূল ভূখণ্ডে আঘাত হানা সম্ভব। একটি রিপোর্টের ভিত্তিতে এই তথ্য জানিয়েছে সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট।

chinese submarine

জানা যায়, সাবমেরিনটির নাম এসএসবিএন। আর তাতে স্থাপন করা ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের নাম এসএলবিএম। এর মাধ্যমে ১০ হাজার কিলোমিটার দূরের নিশানায় নিখুঁতভাবে আঘাত হানা সম্ভব। এর আগে ফোর্বস ম্যাগাজিন জানিয়েছিল, এই ক্ষেপণাস্ত্র হিরোশিমায় নিক্ষিপ্ত লিটল বয় বোমার চেয়ে ৬৭ গুণ শক্তিশালী।

চীনের এই ক্ষেপণাস্ত্রের খবর এমন এক সময় আসলো, যখন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন দেশটির প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন। মঙ্গলবার (৪ মে) সিবিএস সংবাদমাধ্যমকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ওয়াশিংটন-বেইজিং সম্পর্ক নিয়ে তিনি বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে তার দেশের প্রতি চীন অনেক বেশি আক্রমণাত্মক ও বিদ্বেষী আচরণ করছে। এমন অবস্থান উভয় দেশের স্বার্থকে ক্ষতিগ্রস্ত করবে।

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে চীন অন্যায্য প্রতিযোগিতায় জড়াতে চাইছে উল্লেখ করে ব্লিঙ্কেন বলেন, ওয়াশিংটনের প্রতি বেইজিংয়ের এই ক্রমবর্ধমান বিদ্বেষী আচরণ কারো জন্যই ভালো কিছু বয়ে আনবে না।

চীনের উত্থান ঠেকাতে দেশটির বিরুদ্ধে বাণিজ্য শুরু করাসহ বেশ কিছু শক্ত পদক্ষেপ নেন সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে দেশটির নতুন প্রেসিডেন্ট চীন ইস্যুতে ভিন্ন পথে হাঁটার কথা বললেও কার্যত তেমন কোনো উদ্যোগ দেখা যাচ্ছে না।