advertisement
আপনি দেখছেন

আফগানিস্তানের তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দেয়ার ব্যাপারে নিজ স্বার্থের সাথে সঙ্গতি রেখে স্বাধীনভাবে সিদ্ধান্ত নেবে পাকিস্তান। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কনের কথার জের ধরে দেশটি বলছে, তাদের ওপর কোনো চাপ নেই এবং তারা চাপ নেয় না। এমনটাই জািনিয়েছেন বৃহস্পতিবার নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে আসা পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আসিম ইফতিখার আহমেদ।

pak fo spokesmanপাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আসিম ইফতিখার আহমেদ

এর আগে মার্কিন কংগ্রেসের সামনে কথা বলতে গিয়ে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন পাকিস্তানের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, আফগান কর্তৃপক্ষ যদি তাদের আন্তর্জাতিক দাবি পূরণ না করে তাহলে পাকিস্তান যেন তাদের বৈধতার স্বীকৃতি না দেয়।

পাকিস্তানের মুখপাত্র আসিম ইফতিখার কার্যত এ আহ্বান প্রত্যাখ্যান করে বলছেন, কোনো চাপ নেই এবং আমরা কোনো চাপ নেই না। তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দেয়ার ব্যাপারে নিজ স্বার্থের সাথে সঙ্গতি রেখে স্বাধীন সিদ্ধান্ত নেবে পাকিস্তান। ইসলামাবাদ বরাবরই আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে একটি বাস্তববাদী পন্থা অবলম্বন করার আহ্বান জানিয়ে আসছে। আফগান তালেবান ‘নতুন বাস্তবতা’ এবং তাই তাদের সাথে কাজ করার সময় এসেছে।

taliban leaders 3মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন

পাকিস্তানের মুখপাত্র আরো বলেন, পাকিস্তান সম্পর্কে যুক্তরাষ্ট্র যে সব সমালোচনামূলক মন্তব্য করেছে, তা দুই পক্ষের ঘনিষ্ঠ সহযোগিতার সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ নয়। এ সময় সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রকে সহায়তা করার জন্য পাকিস্তান যেসব পদক্ষেপ নিয়েছে তার একটি তালিকা তুলে ধরেন তিনি।

আসিম ইফতিখার বলেন, আফগানিস্তানে আল কায়েদার মূল নেতৃত্বকে পরাজিত করতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে সহায়তা করার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে পাকিস্তান। যা ছিল আন্তর্জাতিক জোটের মূল লক্ষ্য। পাকিস্তান বরাবরই বলে আসছে, যে বৃহত্তর আফগানিস্তানে যে সংঘাত চলছে তার কোনো সামরিক সমাধান নেই এবং একটি রাজনৈতিক সমঝোতাই আফগানিস্তানে টেকসই শান্তির একমাত্র যুক্তিসঙ্গত পথ হতে পারে।

সূত্র: দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউন