advertisement
আপনি দেখছেন

পার্লামেন্ট ভেঙে দেয়ার আড়াই মাস পর নতুন সরকার পেয়েছে তিউনিসিয়া। গতকাল সোমবার দেশটির নতুন মন্ত্রিসভা শপথ নেয়। নাজলা বাউডেনকে দেশের প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগের দুই সপ্তাহ পর কার্থেজের প্রেসিডেন্ট প্যালেসে নতুন মন্ত্রীরা শপথ নেন। রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে।

new cabinet of tunisiaতিউনিসিয়ার নতুন মন্ত্রিসভা

গত ২৯ সেপ্টেম্বর নাজলা বাউডেনকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দেন দেশটির প্রেসিডেন্ট কায়েস সাঈদ। তারও দুই মাস আগে ২৫ জুলাই কায়েস নির্বাচিত সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করেন। একই সময়ে তিনি পার্লামেন্ট স্থগিত করেন এবং নির্বাহী কর্তৃত্ব নিজ হাতে নিয়ে নেন। এই পদক্ষেপের তুমুল সমালোচনা হলেও তিনি দাবি করেছিলেন, দেশকে বাঁচাতেই এমন ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হয়েছেন।

তিউনিসিয়ার নতুন সরকারের ২৩ জনের মধ্যে নারীর সংখ্যা আটজন। নতুন মন্ত্রিসভা শপথ নেয়ার পর এক টেলিভিশন ভাষণে প্রধানমন্ত্রী বাউডেন বলেন, তার সরকার সরকারি পরিষেবা স্বাভাবিকীকরণ এবং নাগরিকদের জীবনযাত্রার উন্নতির জন্য কাজ করে যাবে। পাশাপাশি তারা উত্তর আফ্রিকার দেশটিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের আস্থা ফিরিয়ে আনতে প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।

pm of tunisiaতিউনিসিয়ার প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী নাজলা বাউডেন

মধ্যপ্রাচ্যে আরব বসন্তের পর গণতান্ত্রিক উত্তরণের দিক দিয়ে যে দেশটিকে সবচেয়ে সফল হিসেবে দেখা হয় সেটি হচ্ছে তিউনিসিয়া। অন্যদিকে গণতন্ত্রের জন্য দাবি করা হলেও মিসর, লিবিয়া ও ইয়েমেনসহ বিভিন্ন দেশে এই বিপ্লব মারাত্মকভাবে ব্যর্থ হয়েছে। এসব দেশের জনগণ গণতন্ত্রের কোনো সুবাতাসই পায়নি।