advertisement
আপনি দেখছেন

আফগানিস্তান থেকে প্রায় ২০০ শিক্ষার্থীকে নিরাপদে কিরগিজস্তানের রাজধানী বিশকেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। আমেরিকান ইউনিভার্সিটি অব সেন্ট্রাল এশিয়া (এইউসিএ) এবং কিরগিজস্তান সরকারের নেতৃত্বে একটি উচ্চাভিলাষী পরিকল্পনার আওতায় এটি করা হয়েছে। পাসব্লুর প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে খবরে বলা হচ্ছে, এসব আন্ডারগ্র্যাজুয়েট এবং গ্র্যাজুয়েট শিক্ষার্থীদের প্রায় ৬০ শতাংশই নারী। আকিপ্রেস।

afgan students bishkekকাবুল থেকে বিশকেকে আফগান শিক্ষার্থীরা

ইউনিভার্সিটি বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান ডেভিড লখধির গত ১২ অক্টোবর পাসব্লুকে একটি ইমেইল পাঠান। সেখানে তিনি বলেন, আমরা অনেকাংশে সফল হয়েছি। এইউসিএ-তে আমাদের এখন প্রায় ৩০০ আফগান শিক্ষার্থী আছে, যাদের মধ্যে ১৮০ জনকে গত ৩০ দিনের মধ্যে আফগানিস্তান থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। প্রাইভেটকার ও ছোট বাসে করে প্রথমে তাদের ইসলামাবাদ ও তারপর সেখান থেকে বিমানে করে বিশকেক আনা হয়েছে।

লখধীর বলেন, বেশিরভাগ স্থানান্তর সফল হয়েছে, কিন্তু তাতে বিপত্তি ছিল। কিছু ছাত্রকে তালেবানরা মারধর করে, যদিও এগুলো বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছিল। কিছু শিক্ষার্থীকে কোভিডের জন্য পাকিস্তানে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়, কারণ তারা করোনা পজেটিভ ছিলেন। সবাই এখন নিরাপদ।

auca campusআমেরিকান ইউনিভার্সিটি অব সেন্ট্রাল এশিয়া

খবরে বলা হচ্ছে, কিরগিজ সরকার এসব আফগান শিক্ষার্থীর জন্য সহানুভূতির ভিত্তিতে ভিসা জারি করে। তারপর ট্রানজিট পাস ইস্যুতে পাকিস্তান সরকারের সহযোগিতা নেওয়া হয়। অধিকাংশ শিক্ষার্থীকে পাকিস্তান দিয়ে নেওয়া হয়েছে। 

খবরে বলা হচ্ছে, কাবুল বিমানবন্দর আংশিক খোলার সাথে সাথে শিক্ষার্থীদের আরও দুটি দলকে কিরগিজস্তানের রাজধানী বিশকেকে নেওয়া হয়েছে। তাদের মধ্যে আমেরিকান ইউনিভার্সিটি অব আফগানিস্তান থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত শিক্ষকরাও রয়েছেন।

এসব শিক্ষক-শিক্ষার্থী নিউইয়র্কের বার্ড কলেজের সাথে অংশীদারিত্বের মাধ্যমে এশিয়া, আফ্রিকা, ইউরোপ এবং মধ্যপ্রাচ্যে ওপেন সোসাইটি ফাউন্ডেশন সমর্থিত আমেরিকান বিশ্ববিদ্যালয়ে কাজ করছে।

বলা হচ্ছে, কাবুল থেকে শিক্ষার্থীদের সরিয়ে নেওয়ার পরিকল্পনা ছিল আগেই। এ বিষয়ে মার্কিন ও কিরগিজ সরকারের সঙ্গে আলোচনা হয়। এর নেতৃত্ব দেন আমেরিকান ইউনিভার্সিটি অব সেন্ট্রাল এশিয়ার অন্তর্বর্তী সভাপতি এবং বার্ড কলেজে সেন্টার ফর সিভিক এনগেজমেন্টের পরিচালক জনাথন বেকারের সমন্বয়ে গঠিত একটি দল। মধ্য এশিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে যারা যোগ্যতা অর্জন করে, তাদের বার্ড কলেজের ডিগ্রি পাওয়ার যোগ্য বলে মনে করা হয়।