advertisement
আপনি পড়ছেন

ক্রেমলিন জানিয়েছে, প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ইউক্রেনে ন্যাটোর উপস্থিতি রোধে গ্যারান্টি চেয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বাইডেনের কাছে। বাইডেনের সঙ্গে এক ফোন কলে এমন গ্যারান্টি চান পুতিন। সম্প্রতি মার্কিন গোয়েন্দা প্রতিবেদন এবং ইউক্রেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় ইউক্রেনে সম্ভাব্য রাশিয়ার আক্রমণ সম্পর্কে সতর্ক করে। এপির বরাত দিতে খবরটি দিয়েছে ওসিআর রেজিস্ট্রার নিউজ।

putin biden meeting geneva homeবাইডেন ও পুতিন

রাশিয়া এবং পশ্চিমের মধ্যে উত্তেজনা বাড়ার সাথে সাথে বাইডেন তার প্রশাসনকে বলেছিলেন, আমি বিশ্বাস করি ইউক্রেনে আগ্রাসন চালানো পুতিনের জন্য খুবই কঠিন হবে। তার আশঙ্কা পুতিন ইউক্রেনের কাছাকাছি সৈন্যদের অবস্থান তৈরি করতে পারেন। ন্যাটো প্রধান এবং অসংখ্য সাবেক মার্কিন কূটনীতিক এবং নিরাপত্তা কর্মকর্তারা বলছেন, রাশিয়ার দাবি ইউক্রেন যাতে ন্যাটো সদস্য না হয় সেজন্য বাইডেনের ভূমিকা থাকা উচিত।

ইউক্রেনে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক রাষ্ট্রদূত জন হার্বস্ট গতকাল শুক্রবার বলেছেন, বিশ্বে এমন কোনো উপায় নেই যে, রাশিয়ার অবস্থানকে কেউ টলাতে পারে। এটি মূলত মস্কোর জন্য একটি গৌরবের বিষয়। যুক্তরাষ্ট্র ইউক্রেনে যে সামরিক সহায়তার কথা বলেছে তা হবে শুধুই প্রতিরক্ষামূলক।

putin biden 2যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়া

খবরে বলা হচ্ছে, ইউক্রেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং অন্যান্য পশ্চিমা মিত্ররা উদ্বিগ্ন যে, ইউক্রেনের সীমান্তের কাছে একটি রাশিয়ান সেনা ঘাঁটি স্থাপন মস্কোর আক্রমণের উদ্দেশ্যকে সংকেত দিচ্ছে। তবে কর্মকর্তারা বলছেন, পুতিন আক্রমণের মধ্য দিয়ে যেতে চান বা ইউক্রেন ও তার পশ্চিমা মিত্রদের বিরুদ্ধে হুমকি দিচ্ছেন- এসব বিষয় এখনও স্পষ্ট নয়।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ক্রেমলিনকে হুমকি দিয়েছে, ইউক্রেনে আক্রমণ করলে রাশিয়ার বিরুদ্ধে কঠোরতম নিষেধাজ্ঞা দেবে যুক্তরাষ্ট্র। অন্যদিকে রাশিয়া সতর্ক করেছে, ইউক্রেনের মাটিতে ন্যাটো সৈন্য এবং অস্ত্রের উপস্থিতি ‘বিপজ্জনক’ রেখা অতিক্রম করবে।

ইউক্রেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী ওলেক্সি রেজনিকভ শুক্রবার আইন প্রণেতাদের বলেছেন, ইউক্রেনের কাছে এবং রুশ-অধিভুক্ত ক্রিমিয়ায় রাশিয়ান সৈন্য সংখ্যা আনমুানিক ৯৪ হাজার ৩০০ জন। আগামী জানুয়ারিতে সৈন্য আরও বাড়াতে পারে রাশিয়া।

ইউক্রেনের সীমান্তের কাছে সাম্প্রতিক আর্টিলারি, সৈন্য এবং ম্যাটেরিয়াল মুভমেন্টের বিষয়টি উল্লেখ করে আরেকটি মার্কিন গোয়েন্দা প্রতিবেদন বলছে, রাশিয়া আগামী বছরের শুরুতে ১ লাখ ৭৫ হাজার সৈন্য নিয়ে একটি সম্ভাব্য সামরিক আক্রমণের পরিকল্পনা করছে।

ক্রমবর্ধমান উত্তেজনার মধ্যে, পুতিনের পররাষ্ট্রবিষয়ক উপদেষ্টা ইউরি উশাকভ শুক্রবার সাংবাদিকদের বলেছেন, পুতিন-বাইডেন ফোনালাপের ব্যবস্থা করা হয়েছে। মস্কো এবং ওয়াশিংটন অনুমোদন দেওয়ার পর তারিখ চূড়ান্ত করা হবে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি জেন সাকি।

বৃহস্পতিবার, ৩০ নভেম্বর, মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন রাশিয়ার ইউক্রেনের সীমান্ত থেকে সৈন্য প্রত্যাহার করার দাবিতে স্টকহোমে তার রুশ প্রতিপক্ষ সের্গেই ল্যাভরভের সাথে সাক্ষাৎ করেন। সেখানে লাভরভ বলেন, ন্যাটো সম্প্রসারণের বিষয়ে রাশিয়াকে অস্বীকার করে পশ্চিমারা আগুন নিয়ে খেলছে।

ন্যাটো মহাসচিব জেনস স্টলটেনবার্গ এই সপ্তাহে বলেন, ইউক্রেন পশ্চিমা নিরাপত্তা জোট ন্যাটোতে যোগ দিয়েছে কিনা সে বিষয়ে রাশিয়ার কোনো বক্তব্য নেই। ইউক্রেন কখন জোটে যোগ দিতে প্রস্তুত তা ইউক্রেন এবং ৩০টি মিত্রের ওপর নির্ভর করে। এতে রাশিয়ার হস্তক্ষেপ করার অধিকার নেই।