advertisement
আপনি পড়ছেন

ইউক্রেনে আগ্রাসন চালানোর অজুহাত তৈরি করতে রাশিয়া উসকানিমূলক কর্মকাণ্ড করার ষড়যন্ত্র করছে বলে অভিযোগ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। পেন্টাগনের একজন মুখপাত্র বলেছেন, রাশিয়ান সেনারা ’ফলস ফ্লাগ’ অভিযান বা মিথ্যা অজুহাতে ইউক্রেনের বিরুদ্ধে অভিযানের পরিকল্পনা করছে, যাতে মস্কো ইউক্রেনকে হামলার প্রস্তুতির জন্য অভিযুক্ত করতে পারে। তবে রাশিয়া এই দাবি প্রত্যাখ্যান করেছে। বিবিসি।

vladimir putin 4পুতিন

উত্তেজনা প্রশমনের লক্ষ্যে মার্কিন-রাশিয়ান আলোচনার এক সপ্তাহ পর এ অভিযোগ আসল। ইউক্রেন গতকাল শুক্রবার কয়েক ডজন অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে সাইবার হামলার পেছনে রাশিয়াকে অভিযুক্ত করেছে। সাইটগুলো হ্যাক হওয়ার আগে একটি বার্তা দেয়া হয়। বার্তাটি ছিল, ইউক্রেনীয়রা যেন সবচেয়ে খারাপ পরিস্তিতির জন্য প্রস্তুত থাকে। অবশ্য বেশিরভাগ সাইট কয়েক ঘন্টার মধ্যে পুনরুদ্ধার করা সম্ভব হয়। হ্যাকের ঘটনায় রাশিয়া কোনো মন্তব্য করেনি।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটো এই সাইবার হামলার নিন্দা করেছে এবং ইউক্রেনকে সমর্থনের প্রস্তাব দিয়েছে। পেন্টাগনের মুখপাত্র জন কিরবি শুক্রবার সাংবাদিকদের রাশিয়ার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, রাশিয়া পূর্ব পরিকল্পিতভাবে একটি উসকানি সৃষ্টি করতে চাচ্ছে। যাতে ইউক্রেন আগে হামলা করে বসে এবং রাশিয়া ব্যাপক অভিযান চালানোর অজুহাত পেয়ে যায়। এমনও হতে পারে, ইউক্রেনে রাশিয়ান ভাষী লোকেদের উপর আক্রমণ ঘটিতে দেওয়ার জন্য একটি পরিকল্পনা করা হয়েছে।

মার্কিন কর্মকর্তারা জানাচ্ছেন, শহুরে যুদ্ধের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয় ও ইউক্রেনে রুশপন্থী বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে নাশকতার কাজ চালানোর জন্য বিস্ফোরক ব্যবহার করা হয়েছিল।

ইউক্রেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলছে, মোল্দোভার বিচ্ছিন্ন ট্রান্সডনিস্ট্রিয়া অঞ্চলে অবস্থানরত রাশিয়ান সেনাদের বিরুদ্ধে অনুরূপ পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।

ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ রিপোর্টগুলোকে অপ্রমাণিত ও কোনো কিছু দ্বারা নিশ্চিত নয় বলে বর্ণনা করে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন। তিনি বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জন্য এই ধরনের সংকল্প নিয়ে অগ্রসর হওয়া অস্বাভাবিক। কিন্তু বাইডেন প্রশাসন স্পষ্টভাবে নাশকতা এবং বিভ্রান্তির কৌশল উন্মোচন করতে চাচ্ছে।

পেন্টাগনের মুখপাত্র জন কিরবি বলছেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বিশ্বকে জানাতে চেয়েছিল, একটি আক্রমণ কীভাবে হতে পারে, কারণ এই দৃশ্যটি একই প্লেবুক থেকে এসেছে যেটি রাশিয়ানরা ক্রিমিয়াতে ব্যবহার করেছিল।

মার্কিন প্রশাসন এখনও মনে করে কূটনৈতিক সমাধানের জন্য সময় ও স্থান রয়েছে। প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ইউক্রেনে আক্রমণ করার বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এখনও তা প্রমাণিত হয়নি।