advertisement
আপনি পড়ছেন

ভারতের পর এবার গম রপ্তানি নিষিদ্ধ করেছে ইসলামিক আমিরাত আফগানিস্তান। দেশের অভ্যন্তরীণ চাহিদা মেটাতে আফগান অর্থ মন্ত্রণালয় গম রপ্তানি বন্ধ করতে শুল্ক বিভাগকে নির্দেশ দিয়েছে। খবর তোলো নিউজ।

wheat 1গম রপ্তানি নিষিদ্ধ করেছে আফগানিস্তান

দেশটির কৃষি, সেচ ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা বলেছেন, আফগানিস্তান ধীরে ধীরে গমের ঘাটতির মুখে পড়ছে। বিশেষ করে দেশটি অব্যাহতভাবে খরার মুখে পড়ায় এ সমস্যা আরো প্রকট হচ্ছে।

কৃষি মন্ত্রণালয়ের পরিসংখ্যানের ভিত্তিতে জানা গেছে, আফগানিস্তানে দেশের মানুষের চাহিদা মেটাতে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে দেড় থেকে তিন মিলিয়ন টন গমের ঘাটতি দেখা গেছে। গম চোরাই পথে বিদেশে পাচার করার কারণে এ খাতে চ্যালেঞ্জ আরো বেড়েছে।

afghan farmerগম তুলছেন দুই আফগান

দেশটির ভারপ্রাপ্ত অর্থমন্ত্রী হেদায়েতুল্লাহ বদরি বলেছেন, অনেকে ইরান ও পাকিস্তানে গম পাচার করছে। তাই আমরা কাস্টমসের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের কড়া নির্দেশ দিয়েছি, যাতে কোনোভাবেই পাচার না হতে পারে।

কৃষি, সেচ ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মেসবাহউদ্দিন মোস্তাইন বলেন, অর্থ ও কৃষি মন্ত্রণালয় যৌথভাবে সব সীমান্তে রপ্তানি নিষিদ্ধ করার নির্দেশ দিয়েছে।

এদিকে আফগানিস্তানের কারিগর চেম্বার জানায়, আফগানিস্তান থেকে প্রতিবেশী দেশ ইরান ও পাকিস্তানে গম ও আটা পাচার হয়। চেম্বারের প্রধান নুরুল হক ওমারি বলেন, কেউ কেউ ইরান ও পাকিস্তানে গম ও আটা পাচার করছে, যা দেশে এই দুই পণ্যের দামে নেতিবাচকভাবে প্রভাব ফেলে।

বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রণালয়ের একজন সাবেক কর্মকর্তা বলেছেন, রাশিয়া-ইউক্রেন সংঘাতের কারণে অনেক দেশ শস্য ঘাটতির সম্মুখীন হয়েছে। বিশেষ করে গমের ঘাটতি বেড়েছে অনেক বেশি।

আফগানিস্তান চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট (এসিসিআই) জানিয়েছে, দেশের চাহিদার ঘাটতি মেটাতে আফগানিস্তান কাজাখস্তান ও রাশিয়া থেকেই বেশিরভাগ গম ও আটা আমদানি করে থাকে।