advertisement
আপনি পড়ছেন

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান অবিলম্বে নির্বাচনের দাবিতে আগামী ২৫ মে বুধবার ইসলামাবাদ অভিমুখে লং মার্চের ঘোষণা দিয়েছেন। আজ রোববার পেশাওয়ারে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ ঘোষণা দেন।

imran khan jheelum rallyশুক্রবার মুলতানের ইমরান খান রোববার লং মার্চের তারিখ ঘোষণা করবেন বলে জানান

ইমরান খান বলেন, আমি চাই সমাজের সর্বস্তরের মানুষ লং মার্চে আসুন। এটা রাজনীতি নয়, এটা জিহাদ। আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি এবং আমার টিমকেও বলেছি যে আমাদের নিজেদের জীবন উৎসর্গ করতে প্রস্তুত হতে হবে।

লং মার্চে যোগ দিতে নারীদের প্রতি বিশেষভাবে আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, আমি সব নারীকে লং মার্চে আমন্ত্রণ জানাচ্ছি। আমি এই সরকারের প্রতি আপনাদের ক্ষোভ দেখেছি। আমি বহুদিন এমন বিক্ষুব্ধ মানুষ দেখিনি।

ইসলামাবাদের লং মার্চ অবস্থান কর্মসূচিতে রূপান্তর হতে পারে বলে আভাস দেন ইমরান খান। সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, আমরা কোনোভাবেই পাকিস্তানের উপর চাপিয়ে দেওয়া এই দুর্নীতিবাজদের সরকারকে মেনে নিব না। যতদিন ইসলামাবাদে থাকতে হয়, আমরা থাকব।

তিনি আরও বলেন, আমরা অবিলম্বে স্বচ্ছ ও সুষ্ঠু নির্বাচন চাই। নির্বাচনে দেশের মানুষ যদি বর্তমান সরকারকে ক্ষমতায় ফিরিয়ে আনে, আমাদের আপত্তি নেই। কিন্তু বাইরের কারো চাপিয়ে দেওয়া সরকার ক্ষমতায় থাকতে পারবে না।

পাকিস্তান সরকার লং মার্চে সর্বাত্মক চেষ্টা করবে এমন মন্তব্য করে ইমরান খান তার দলের নেতাকর্মীদের আগে থেকে লং মার্চের জন্য প্রয়োজনীয় যোগাযোগ, পরিবহন ও জ্বালানির ব্যবস্থা করার পরামর্শ দেন।

লং মার্চে অন্যায়ভাবে কোনোরকম বাধাদানের বিরুদ্ধে আমলাদের সতর্ক করে তিনি বলেন, শান্তিপূর্ণ কর্মসূচির বিরুদ্ধে কোনো ভুল ব্যবস্থা নেওয়া হলে সেটা বেআইনি হবে এবং সেজন্য আমরা আপনাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিব।

সংবাদ সম্মেলনের শুরুতে ইমরান খান লং মার্চের প্রেক্ষাপট, তার সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র ইত্যাদি নিয়ে বিস্তারিত বক্তব্য তুলে ধরেন। পাকিস্তানের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় শহর পেশাওয়ারে জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলনে ইমরান খানের পাশাপাশি তার দল পিটিআইর গুরুত্বপূর্ণ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

পাকিস্তানের সেনাবাহিনীকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, আপনারা বলেছেন যে আপনারা নিরপেক্ষ। কাজেই এখন নিরপেক্ষ থাকুন।

এর আগে শুক্রবার রাতে পাঞ্জাবের মুলতানে এক জনসভায় ইমরান খান রোববার লং মার্চের তারিখ ঘোষণা করবেন বলে জানান। মুলতানের জনসভা শেষে তিনি ইসলামাবাদে না ফিরে পেশাওয়ারের দিকে রওনা হন। ওইদিন রাতে ইসলামাবাদে তার বাসভবনের সামনে পুলিশের একটি দল অবস্থান নেয়।